মেইন ম্যেনু

লিপস্টিকের রঙ বেশিক্ষণ ধরে রাখতে…

যতোই সাজুন না কেন, ঠোঁটে লিপস্টিক না দিলে সাজের পূর্ণতা আসে না। বাইরে কোনো কাজে বা অনুষ্ঠানে যোগ দিতে প্রয়োজন হয় সাজ পোশাকের সামঞ্জস্যতা। সাজের শুরুতে সবকিছু ঠিকঠাক থাকলেও কিছুক্ষণ পরে দেখা যায় একটু এলোমেলো। হয়তো ঠোঁটে দেয়া রঙটা হালকা হয়ে গেছে, ঠোঁটের চারপাশে লিপস্টিক ছড়িয়ে গেছে এমনকি ঠোঁট ঘেমেও যেতে পারে। তাই লিপস্টিকের রঙ আকর্ষণীয় রাখতে এর সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। তাহলে সারাদিনেও বিব্রতকর অবস্থায় পড়তে হবে না। তাই শিখে নিন ঠোঁটে বেশিক্ষণ লিপস্টিক ধরে রাখার কৌশল-

* প্রথমে লিপস্টিক লাগিয়ে টিস্যু পেপার দিয়ে দুই ঠোঁটের মাঝে চাপ দিন। ভেজা ভাব দূর হবে, লিপস্টিকও স্থায়ী হবে।

* ভালোমানের ম্যাট লিপস্টিক ব্যবহার করা মোটামুটি নিরাপদ। এটি দিনভর আপনাকে রঙিন রাখবে।

* লিপস্টিক ভেজা হলেও তার ওপর সামান্য পাউডার লাগিয়ে নিন। তাহলে ঠোঁটের চারপাশে ছড়াবে না।

* আপনার ত্বক, পোশাক, ব্যক্তিত্ব, সময়, চেহারা- সবকিছু মাথায় রেখেই লিপস্টিক বেছে নিতে হবে।

* লিপব্রাশ দিয়ে ঠোঁটে লিপস্টিক লাগালে ভালোভাবে ঠোঁটে লিপস্টিক মিশে যায়।

* লিপস্টিক লাগানোর আগে ঠোঁটকে একটু আদ্র করে নেয়া ভালো। ঠোটেঁর কোণায় সামান্য ফাঁকা রেখে পুরোটা অংশে লিপস্টিক লাগিয়ে দিন।

* যাদের ঠোঁট মোটা তারা লিপস্টিক লাগানোর আগে লিপ পেন্সিল দিয়ে ঠোঁটের বাইরের অংশ কিছুটা ছেড়ে একে নিন।

* পাতলা ঠোঁট যাদের তারা ঠিক ঠোঁটের বর্ডার ধরে ভিতরটা রঙ করুন। যদি লিপস্টিক বর্ডার ছাপিয়ে বেরিয়েও যায় খুব একটা খারাপ লাগবে না। বরং ঠোঁটটা আরও ভরাট ও মোহনীয় দেখাবে।

* যেখানেই যান একটা টিস্যু হাতে রাখতে পারেন। একটু পরপর মুখ মোছার সময় ঠোঁটের চারপাশ সাবধানতার সঙ্গে মুছে নিলে আপনি থাকবেন ঝামেলামুক্ত।






মন্তব্য চালু নেই