মেইন ম্যেনু

লিবিয়ায় অস্ত্র সরবরাহে সম্মত যুক্তরাষ্ট্রসহ ২৫ দেশ

উত্তর আফ্রিকায় কথিত ইসলামিক স্টেটের প্রভাব বিস্তার রোধে লিবীয় সরকারকে অস্ত্র সহায়তা দেয়ার বিষয়ে সম্মতহয়েছে যুক্তরাষ্ট্রসহ ২৫ টি দেশ।

মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি এবং ইটালীয় পররাষ্ট্রমন্ত্রীর আমন্ত্রণে ভিয়েনায় এক বৈঠক শেষে এই ঘোষণা দেয়া হয়।

লিবিয়ায় প্রতিদ্বন্দ্বী গোষ্ঠিগুলোর হাত থেকে অস্ত্র দুরে রাখতে জাতিসংঘ দেশটিতে অস্ত্র নিষেধাজ্ঞা জারি করে। তবে মার্কিন পররাষ্ট্রমন্ত্রী জন কেরি এবং অন্যান্য পররাষ্ট্রমন্ত্রীরা সম্মত হয়েছেন যে তারা এই নিষেধাজ্ঞা তুলে নেয়াকে সমর্থন করবেন যাতে লিবিয়ার নতুন ঐক্যমত্যের সরকার কথিত ইসলামিক স্টেটের বিরুদ্ধে লড়াই করতে পারে।

বৈঠকের পর ইউরোপিয় ইউনিয়নের পররাষ্ট্র বিষয়ক হাই রিপ্রেজেন্টেটিভ, ফেদেরিকা মোঘেরিনি বলেন, লিবীয় জনগণকে সহায়তা করার জন্য ইইউ কিছু প্রকল্প হাতে নিয়েছে।

“ইউরোপিয় ইউনিয়নের পক্ষ থেকে আমরা দশ কোটি ইউরোর একটি তহবিল তৈরি করেছি।” বলেন মিস মোঘেরিনি।

গত মাসেই লিবিয়ার নবগঠিত সরকার সতর্ক করে দিয়ে বলেছিল, দ্রুত থামানো না গেলে আইএস দেশটির অধিকাংশ এলাকা দখল করে নিতে পারে।

ঐক্যমত্যের সরকারের প্রধানমন্ত্রী ফয়েজ সেরাজ বলেছেন, দেশটির সামনে এখন বড় ধরণের চ্যালেঞ্জ অপেক্ষা করছে এবং আইএসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে বাইরের সাহায্য প্রয়োজন।

২০১১ সালে কর্নেল গাদ্দাফির পতনের পর লিবিয়ার বিভিন্ন বিদ্রোহী গোষ্ঠি দেশটির বিভিন্ন অংশের নিয়ন্ত্রণ করছে।

সূত্র: বিবিসি।






মন্তব্য চালু নেই