মেইন ম্যেনু

লিবিয়ায় জঙ্গী হামলায় বাবুগঞ্জের নিহতের বাড়িতে শোকের মাতম

লিবিয়ায় আইএস জঙ্গীদের ছোঁড়া গুলিতে নিহত আরিফুর রহমান সিদ্দিকের (৩২) গ্রামের বাড়িতে চলছে শোকের মাতম। নিহত আরিফুর রহমান বরিশালের বাবুগঞ্জ উপজেলার রহমতপুর ইউনিয়নের লোহালিয়া গ্রামের আবুল কালাম আজাদের পুত্র।

পরিবারের একমাত্র উপার্র্জনক্ষম আরিফুর রহমানের নিহতের খবর পাওয়ার পর থেকে দিশেহারা হয়ে পড়ছেন পুরো পরিবারের সদস্যরা। নিহত আরিফের লাশ ফেরত পেতে তার বৃদ্ধ পিতা-মাতা ও স্বজনেরা প্রধানমন্ত্রীর সহযোগীতা কামনা করেছেন। শুক্রবার সকালে লোহালিয়া গ্রামের নিহত আরিফের বাড়িতে গিয়ে দেখা গেছে, পুত্র শোকে বিলাপ করছেন তার বৃদ্ধ মা রাবেয়া বেগমসহ পরিবারের অন্যান্য সদস্যরা।

তাদের আহাজারিতে ওই এলাকার পুরো আকাশ-বাতাস ভাড়ি হয়ে ওঠে। জানা গেছে, পরিবারের আর্থিক স্বচ্ছলতার জন্য গত ৫ বছর পূর্বে আরিফুর রহমান সিদ্দিক মধ্যপ্রাচ্যের দেশ সুদান থেকে লিবিয়ায় পাড়ি জমান। সেখানে আল-কোফরা শহরের শারিকা হাসপাতালে কাজ করতেন আরিফ। ৫ ভাই-বোনের মধ্যে আরিফুর ছিলো দ্বিতীয়। তার একার আয়েই চলতো পুরো সংসার।

নিহত আরিফুরের পিতা জানান, গত কয়েক মাস লিবিয়ার পরিস্থিতি খারাপ হয়ে ওঠার পর থেকে আরিফুর বাড়িতে টাকা পাঠাতে পারেনি। তিনি আরও জানান, লিবিয়ায় চলমান পরিস্থিতি শান্ত হওয়ার পর আরিফুরের দেশে ফেরার কথাছিলো। গত সোমবার সে মোবাইল ফোনে তাকে এ কথাই বলেছিলো।

আরিফুরের ছোট ভাই আনিসুর রহমান বলেন, দীর্ঘ ৫ বছর পর ভাই দেশে ফিরে আসবে এ প্রতিক্ষায় প্রহর গুনছিলাম আমরা ভাই-বোনসহ আমাদের বৃদ্ধ মা-বাবা। তিনি আরও জানান, গত ২২ জুলাই রাতে লিবিয়া থেকে ভাই (আরিফুরের) বন্ধুরা বাড়িতে ফোন করে জানায়, গত ২১ জুলাই দুপুরে আইএস জঙ্গীরা লিবিয়ার নিয়ার আজদাবিয়া শহর থেকে তার ভাইকে (আরিফুর) ও অপর বাংলাদেশী ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নাসিরনগর উপজেলার দাঁতমন্ডল গ্রামের মোসলেহ উদ্দিনকে ধরে নিয়ে কোন কারণ ছাড়াই গুলি করে হত্যা করে।

আনিসুর রহমান আরও জানান, তাদের বৃদ্ধ পিতা-মাতাকে সেদিন এ দুঃসংবাদের খবরটি জানানো হয়নি। পরবর্তীতে বিভিন্ন গণমাধ্যমে লিবিয়ায় জঙ্গীদের হাতে দুই বাংলাদেশী নিহত হওয়ার খবর প্রচারিত হওয়ার পর সর্বত্র খবরটি ছড়িয়ে পরলে বাবা-মাও খবরটি পেয়ে যান। বিলাপ করে নিহত আরিফের বৃদ্ধ পিতা-মাতা ও স্বজনেরা আরিফের লাশ দেশে ফিরিয়ে আনার জন্য বাংলাদেশ সরকারের প্রধানমন্ত্রীর সহযোগীতা কামনা করেছেন। বাবুগঞ্জ থানার ওসি মো. শাহ আলম জানান, বিষয়টি সংশ্লিষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের অবহিত করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই