মেইন ম্যেনু

লুঙ্গি দিতে দেরি হওয়ায় স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা করল স্বামী

লুঙ্গি দিতে দেরি হওয়ায় স্ত্রীকে কুপিয়ে হত্যা করল পাষণ্ড স্বামী। এমন নির্মম ঘটনা ঘটেছে বগুড়ার গাবতলীতে।

গোসলের জন্য নতুন লুঙ্গী দিতে দেরি হওয়ায় রুবি বেগম (২৫) বেগম নামের এক গৃহবধূকে বঁটি দিয়ে কুপিয়ে হত্যা করেছে নেশাসক্ত স্বামী।

সোমবার সকাল ১০টার দিকে উপজেলার দক্ষিণপাড়া ইউনিয়নের গোয়ালপাড়া গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। গ্রামাবাসী ঘাতক স্বামী ফুল মিয়াকে আটক করে পুলিশে সোপর্দ করেছে।

জানা গেছে, গত ৮ বছর আগে গোয়ালপাড়ার আব্দুর রশিদ প্রামানিকের মেয়ে রুবি ঋাতুনের সঙ্গে একই গ্রামের জালাল উদ্দিনের পুত্র ফুল মিয়ার সাথে বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকেই তাদের মধ্যে সাংসারিক কলহ চলতে থাকে।

বিয়ের পর থেকেই ফুল মিয়া যৌতুক দাবিসহ নানা কারণে মাঝে মধ্যেই স্ত্রীকে মারপিট করতো। এরই মধ্যে ফুল মিয়া জুয়া খেলে বেশকিছুু জমি বিক্রি করে দিয়েছে।

জমির দলিল করাকে কেন্দ্র করে স্বামী-স্ত্রীর মধ্যে তর্কবির্তক চলতে থাকে। একপর্যায়ে আজ সোমবার সকালে গোসলের জন্য লুঙ্গি দিতে দেরি হওয়ায় ফুল মিয়া ক্ষিপ্ত হয়ে ঘরের ভেতর থাকা ধারালো বঁটি দিয়ে স্ত্রী রুবি খাতুনের পিঠে ও মাথায় কোপ দেয়।

এসময় রুবি মাটিতে লুটিয়ে পড়লে তখন লাঠি দিয়ে পিটাতে থাকে ফুল মিয়া। এতে ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় রুবির।

এ ঘটনায় রুবির ৭ বছর বয়সী একমাত্র পুত্র রুহুল আমীনের চিৎকারে গ্রামবাসী ছুটে এসে ঘাতক ফুল মিয়াকে পালানোর সময় আটক করে।

খবর পেয়ে র‌্যাব ও থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ঘাতক ফুল মিয়াকে আটক করে। পুলিশ তার লাশ উদ্ধার করে মর্গে পাঠিয়েছে।

এ ঘটনায় এসআই লাল মিয়া জানান, রুবিকে ধারালো বঁটি ও লাঠি দিয়ে পিটিয়ে হত্যা করা হয়েছে। ঘটনাটি খতিয়ে দেখছে পুলিশ।

গ্রামবাসী জানায়, ঘাতক ফুল মিয়া একজন জুয়াড়ু এবং নেশাসক্ত ব্যক্তি।

গাবতলী মডেল থানার ওসি সাহিদ মাহমুদ খান জানান, আটক ফুল মিয়াকে থানা হাজতে রাখা হয়েছে। মামলা দায়েরের পর প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই