মেইন ম্যেনু

লুঙ্গি পরে ক্লাসে যাওয়ায় শিক্ষক লাঞ্ছিত!

পাবনার বেড়া উপজেলায় জেএসসি পরীক্ষার্থীদের কোচিং ক্লাসে (অতিরিক্ত ক্লাস) লুঙ্গি পরে যাওয়ার অপরাধে একজন শিক্ষককে লাঞ্ছিত করেছেন বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির এক সদস্য।

শনিবার সকাল ৮টার দিকে উপজেলার নতুন ভারেঙ্গা ইউনিয়নের ঐতিহ্যবাহী ভারেঙ্গা একাডেমিতে এ ঘটনা ঘটে। এতে ওই বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অভিযুক্ত সদস্যের বিচার দাবি করে বিক্ষোভ করেছে।

লাঞ্ছনার শিকার ওই বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক জানান, আসন্ন জেএসসি পরীক্ষার্থীদের ভালো ফলাফলের জন্য বিদ্যালয়ে প্রতিদিন ভোরে অতিরিক্ত ক্লাস নেওয়া হয়। আজ সকালে তিনি শারীরিক ও পারিবারিক সমস্যার কারণে অতিরিক্ত ক্লাস (কোচিং) করাতে চাননি। কিন্তু বিদ্যালয়ে ওই দিন কোচিং ক্লাসে শিক্ষক কম থাকায় তাঁর এক সহকর্মীর অনুরোধে জরুরিভাবে লুঙ্গি পরেই তিনি শ্রেণিকক্ষে ক্লাস করাতে যান। সকাল ৮টার দিকে বিদ্যালয়ের ব্যবস্থাপনা কমিটির হিতৈষী সদস্য আজিবর মুহরী শ্রেণিকক্ষে ঢুকে তাঁকে লুঙ্গি পরা দেখেই ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন এবং কোনো কথা না বলেই শ্রেণিকক্ষের ভেতর ছাত্রছাত্রীদের সামনেই তাঁকে মারধর ও অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন।

ভারেঙ্গা একাডেমির শিক্ষকরা জানান, ওই হিতৈষী সদস্য শিক্ষককে কোনো কথা বলার সুযোগ না দিয়েই তাঁকে কিল-ঘুষি-লাথি মারতে থাকেন এবং অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন। তাঁর এমন আচরণে উপস্থিত শিক্ষক ও ছাত্রছাত্রীরা হতভম্ব হয়ে পড়েন। পরে বিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা অভিযুক্ত সদস্যের বিচার দাবি করে বিদ্যালয়ে বিক্ষোভ করে।

স্থানীয়দের সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে, আজিবর মুহরী এলাকায় ইয়াবা ব্যবসায়ী ও সুদখোর মহাজন হিসেবে পরিচিত। মুহরি হিসেবে তথ্য গোপন করে জাল ও ভুয়া দলিল করে একাধিকবার তিনি মুচলেকা দিয়ে রক্ষা পেয়েছেন। গত বছর তাঁর অপকর্মের জন্য বেড়া উপজেলা গেটে তাঁকে কান ধরে ওঠবস করানো হয়।

ভারেঙ্গা একাডেমির ছাত্রছাত্রীরা ওই সদস্যের বিচারসহ তাঁকে সদস্য পদ থেকে বহিষ্কারের দাবি জানিয়েছে।

ভারেঙ্গা একাডেমির প্রধান শিক্ষক মাহফুজার রহমান বলেন, ‘আমি স্কুলের কাজে ঢাকায় আছি। শিক্ষকরা ফোনে আমাকে বিষয়টি জানিয়েছেন। আমি ফেরার পর এ ব্যাপারে কথা বলব।’

অভিযুক্ত সদস্য আজিবর মুহরিকে একাধিকবার মোবাইল ফোনে কল করলেও তিনি রিসিভ করেননি।

বেড়া উপজেলার শিক্ষক সমিতির সভাপতি আবু বকর সিদ্দিক বলেন, ওই শিক্ষককে মারধর করা হয়েছে স্কুল সময়ের আগে। তিনি তো তখন স্বেচ্ছাশ্রমে ব্যস্ত ছিলেন। আনুষ্ঠানিক ক্লাস শুরু হওয়ার আরো বেশ দেরি ছিল। শ্রেণিকক্ষে ঢুকে ছাত্রছাত্রীদের সামনে একজন শিক্ষককে লাঞ্ছিত করে ওই সদস্য পুরো শিক্ষকসমাজকে অপমাণিত করেছেন। তাঁর বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের কাছে জোর দাবি জানান তিনি।

ভারেঙ্গা একাডেমির ব্যবস্থাপনা কমিটির সভাপতি আলম খানের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, সত্যতা প্রমাণিত হলে ওই সদস্যের বিরুদ্ধে বিধি মোতাবেক ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।






মন্তব্য চালু নেই