মেইন ম্যেনু

লেবুর ১০ গুণ

গরমের দিনে প্রাণ জুড়াতে টক-মিষ্টি স্বাদের একগ্লাস লেবুর শরবতের তুলনা নেই। লেবুতে প্রচুর ভিটামিন সি, শর্করা, ক্যালসিয়াম ও লৌহজাতীয় পদার্থ রয়েছে। এসব উপাদান আমাদের শরীরের জন্য অত্যন্ত কল্যাণকর। অ্যান্টি ব্যাক্টেরিয়াল, অ্যান্টিভাইরাল এবং ইমিউন বুস্টিং ক্ষমতা অতিরিক্ত ওজন কমাতে, হজম শক্তি বাড়াতে এবং মুহূর্তে তরতাজা করতে লেবুর শরবত খুবই কার্যকরী। আজ আপনাদের জানাচ্ছি লেবুর ১০টি গুণ সম্পর্কে।

লেবু মুখের ত্বকের লাবণ্য ধরে রাখে
মুখের ত্বকের লাবণ্য ধরে রাখতে লেবুর ভূমিকা অনস্বীকার্য। আপনি যদি নিয়মিত লেবুর রস খান বা লেবুর রস মুখে মাখেন, তবে আপনার মুখের ত্বক সুন্দর হবে। পানির মধ্যে লেবুর টুকরো, চিনি আর মুধ মিশিয়ে আপনি তৈরি করতে পারেন চমত্কার পানীয় তথা লেবুর শরবত। প্রতিদিন এই শরবত পান করলে আপনার মুখের ত্বক লাবণ্যময় হবে। নিয়মিত লেবুর শরবত পান করলে আপনার গায়ের রঙও তুলনামূলকভাবে ফর্সা হবে। আর সৌন্দর্য চর্চায় লেবুর ব্যবহারও সহজ। মুখ ভালো করে ধুয়ে ছোট ছোট লেবুর টুকরা মুখের ওপর বিছিয়ে নিন। এভাবে আধা ঘণ্টা থাকুন। তারপর পরিষ্কার পানি দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। এভাবে করলে আপনার মুখের ত্বক মসৃণ হবে।

রোগ প্রতিরোধে সহায়ক
লেবুতে ভিটামিন সি থাকে। ভিটামিন সি রক্তনালীর সুরক্ষায় ইতিবাচক ভূমিকা পালন করতে পারে। লেবুপানি রক্তচাপ ও কিডনির পাথরসহ অনেক রোগ প্রতিরোধে সহায়ক ভূমিকা পালন করে।

ক্যালসিয়াম ও লৌহযুক্ত খাবারের কার্যকারিতা বাড়ায়
বাজারে ক্যালসিয়াম ও লৌহসমৃদ্ধ খাবার প্রচুর পাওয়া যায়। আমরা নিয়মিত সেসব খাইও। কিন্তু যদি এসব খাবারের সঙ্গে একটু লেবু মিশিয়ে নেন, তবে খাবারগুলোর কার্যকারিতা বেড়ে যাবে।

খাবারের মশলা ও জীবাণুর নেতিবাচক প্রভাব থেকে রক্ষা
সিফুড খেলে অনেকের সমস্যা হয়। এ সমস্যা কাটাতে লেবু ভূমিকা পালন করতে পারে। খাবারে আমরা যে মশলা ব্যবহার করি, অনেকসময় তা আমাদের শরীরে নেতিবাচক প্রভাব ফেলে। লেবু এ প্রভাব কাটাতে সাহায্য করে। লেবুর রস খাবারকে জীবাণুমুক্তও করতে পারে। সিফুডকে লেবুপানিতে ১৫ মিনিট ভিজিয়ে রাখলে তা জীবাণুমুক্ত হয়।

নেশা কাটাতে লেবুর রস কার্যকরী
বেশি মদ পান করে যদি কেউ মাতাল হয়ে যান, তবে তার নেশা কাটাতে লেবুপানি সাহায্য করতে পারে। শুধু লেবুপানি খেতে না চাইলে তাতে একটু চিনি মিশিয়ে নিতে পারেন।

বমির ভাব দূর
কোনো কারণে বমি বমি ভাব হলে আমাদের ভীষণ অস্বস্তি লাগে। এক্ষেত্রে লেবুর রস মিশ্রিত পানি পান করুন। দেখবেন বমি বমি ভাব কেটে গেছে।

মুখের ব্রণ সারাতে
মুখে ব্রণ হলে বা শীতের কারণে মুখে ফুসকুড়ি দেখা দিলে লেবুর ব্যবহার করুন; উপকার পাবেন। রাতের ঘুমানোর আগে লেবু ছোট করে কেটে মুখে মাখুন। নিয়মিত এরকম করলে আপনার মুখের ব্রণ সমস্যা বা ফুসকুড়ির সমস্যা দূর হয়ে যাবে।

স্থুলতা সমস্যা সমাধানে সহায়ক
মুটিয়ে যাওয়া মানেই শরীরে অতিরিক্তি চর্বি জমে যাওয়া, যা আমাদের স্বাস্থ্যের জন্য খুবই ক্ষতিকর। তাই ওজন নিয়ন্ত্রণে রাখতে হবে। যদি কোনো কারণে ওজন বেড়ে যায়, তবে নিয়মিত লেবুপানি পান করুন। দেখবেন ওজন কমে আসবে। পেটের সমস্যা হলেও লেবুপানি উপকার দেবে।

ফ্রিজের গন্ধ দূর করতে
ফ্রিজে খাবার রাখা হয়। আর খাবারের কারণেই ফ্রিজের ভেতরে দুর্গন্ধ সৃষ্টি হতে পারে। কয়েক টুকরো লেবু ফ্রিজের ভেতর খোলা রেখে দিন। দেখবেন ফ্রিজের দুর্গন্ধ দূর হয়ে গেছে।

দাঁতের সমস্যা সমাধান
মাড়ি থেকে রক্ত পড়লে লেবুপানি দিয়ে কুলকুচা করুন। দেখবেন ধীরে ধীরে রক্ত পড়া বন্ধ হয়ে যাবে। আরেকটি কথা, আপনি যদি নিয়মিত লেবুপানি পান করেন, তবে আপনার দাঁতে সহজে ক্ষয়রোগ হবে না।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই