মেইন ম্যেনু

শচীনের সঙ্গে মোস্তাফিজের তুলনা

বাংলাদেশের ‘বিস্ময় বালক’ মোস্তাফিজুর রহমানকে ক্রীড়া জগতের কিংবদন্তিদের সঙ্গে তুলনা করেছেন সাসেক্স ক্রিকেট ক্লাবের সিইও জ্যাক তৌমাজি। নিজেদের মাঠে টি-টোয়েন্টি ম্যাচ চলাকালীন এক সাক্ষাৎকারে তিনি বলেন, ‘ফিজ এমন একজন ব্যক্তি যার সঙ্গে শচীন টেন্ডুলকার, বেকহ্যাম, ক্রিস গেইলের তুলনা চলে।’

এই মৌসুমে ইংল্যান্ডের ঐতিহ্যবাহী ক্রিকেট ক্লাব সাসেক্সে খেলার কথা ছিল মোস্তাফিজের। কিন্তু দুটি ম্যাচ খেলেই ইনজুরিতে পড়ায় ছিটকে যান তিনি। প্রথম ম্যাচে চার উইকেট নিয়ে ম্যাচসেরা হন। শুরুতে ফিজের কাছ থেকে এমন দাপট দেখে তাকে না পাওয়ার আপসোস বাড়ছে দলটির।

‘মোস্তাফিজ বেশি ম্যাচ খেলতে পারলে আমরা ভালো অবস্থানে চলে যেতাম। অভিষেকে চার উইকেট নিয়ে তিনি সেই বার্তাই দিয়েছিলেন।’ বলেন তৌমাজি।

আইপিএলের আগে থেকে মোস্তাফিজের দিকে নজর রাখে সাসেক্স। এরপর চাউর হয়, ইংল্যান্ডে খেলতে যাবেন সাতক্ষীরার তরুণ। আইপিএল থেকে ফিরে ছয় সেশনের পুনর্বাসন প্রক্রিয়া শেষ করে ইংল্যান্ডে উড়াল দেন। ইংল্যান্ডের আবহাওয়া আর বাংলাদেশের আবহাওয়া এখন রাতদিন পার্থক্য। অথচ মোস্তাফিজ সে দেশে পা রেখেই মাঠে নেমে পড়েন। ইংল্যান্ডের মতো কন্ডিশনে একজন খেলোয়াড়কে অন্য দেশ থেকে এসে কমপক্ষে ২৪ ঘণ্টা বিশ্রাম নিতে হয়।

তৌমাজি জানান, প্রথমদিন গ্যালারিতে বসে তিনিও মোস্তাফিজের খেলা দেখেন।

সাসেক্স সিইও বলেন, আইপিএলের অনেক আগে থেকে মোস্তাফিজকে দলে নিয়েছে তার দল। বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের সঙ্গে তার যোগাযোগ আছে।

‘আমার কোচরা তাকে আবিষ্কার করে। আমি তাকে এনেছি এ কথা বললে ভুল বলা হবে। আমি পেশাদার ক্রিকেটার নই। আমার কর্মকর্তারা তাকে চিনেছে আইসিসির ওয়েব সাইটের পরিসংখ্যান দেখে। আমরা কয়েকজন বোলারের দিকে নজর রাখছিলাম। কর্মকর্তারা আমাকে জানান, এই ছেলেটি বিশেষ কিছু। এরপর আইপিএলের আগেই ওর সঙ্গে আমরা চুক্তি করি।’

সাসেক্সের কমিউনিকেশন এন্ড মার্কেটিং এক্সিকিউটিভ জানান মোস্তাফিজ আসার আগে তাদের ওয়েব সাইটে ভিজিটর ছিল ৪০ হাজার। মোস্তাফিজ আসতেই সেটা তিন লাখের কাছাকাছি পৌঁছে যায়!






মন্তব্য চালু নেই