মেইন ম্যেনু

‘শতাব্দীর সেরা আবিষ্কার সেই মেয়েটি’

‘বজরঙ্গি ভাইজান’- এ এক প্রতিবন্ধী বালিকার ভূমিকায় অভিনয় করে দর্শকদের মুগ্ধ করেছে ৭ বছরের হর্ষালি মালহোত্র। সিনেমার চরিত্রে প্রতিবন্ধী হলেও বাস্তবে সে খুবই মুখর। ওর মা জানিয়েছেন, বাস্তবে হর্ষালি প্রচুর কথা বলে। একদণ্ডও কথা না বলে থাকতে পারে না ও।

সাংবাদমাধ্যমকে কাজল মালহোত্র জানিয়েছেন, হর্ষালির ওই বক বক করার স্বভাব নিয়ে ওয়ার্কশপ চলাকালে কিছুটা উদ্বিগ্ন হয়ে পড়েছিলেন সিনেমার কাস্টিং ডিরেক্টর মুকেশ। তিনি বলতেন, ভেবেই পাচ্ছি না ওকে চুপ করানো যায় কীভাবে।

তিনি বলেন, শ্যুটিংয়ের কাজকর্ম হর্ষালিকে একেবারেই বদলে ফেলতে পারেনি। ও আগে যেমন ছিল, এখনো তেমনই রয়েছে।

শিশুশিল্পীকে নিয়ে শ্যুটিংয়ের কাজ সবসময়ই কঠিন। কিন্তু এক্ষেত্রে পরিস্থিতি খুব ভালো করে সামলেছেন সালমান খান ও পরিচালক কবির খান।

কাজল মালহোত্র এ ব্যাপারে বলেছেন, শ্যুটিংয়ের সময় জোরে শব্দ হলে ভয় পেয়ে যেত হর্ষালি। কিন্তু শ্যুটিংয়ের সময় যাতে ও নিজের মতো থাকতে পারত, অন্যদের সঙ্গে খেলা করতে পারত তার চেষ্টা করেন সালমান ও কবীর।

অভিনয়ের প্রশংসায় ভাসছে হর্ষালি। সবচেয়ে উল্লেখযোগ্য মন্তব্য করেছেন সম্ভবত ফারহা খান। তিনি বলেছেন, হর্ষালি ‘শতাব্দীর সেরা আবিষ্কার’। এরকম জনপ্রিয়তার মধ্যেও মেয়ের যাতে পড়াশোনায় ব্যাঘাত না ঘটে তা মাথায় রাখছেন হর্ষালির মা। পড়াশোনা ও অভিনয়ের মধ্যে ভারসাম্য রক্ষার পথেই হাঁটছেন তারা।

কাজল মালহোত্র বলেছেন, টেলিভিশনে অভিনয় খুব একটা পছন্দ করছেন না তারা।






মন্তব্য চালু নেই