মেইন ম্যেনু

শরণার্থীরা জঙ্গি নয়: জার্মানি

প্যারিসের হামলার পর ইউরোপের দেশগুলোতে যখন শরনার্থী বিরোধী প্রচারণা ছড়িয়ে পড়েছে তখনো নিজেদের নীতিতে অটল রয়েছে জার্মানি। শুধু তাই নয়, এসব অসহায় মানুষদের পক্ষে কথা বলতে শুরু করেছেন জার্মান নেতারা। বর্তমান অবস্থায় ইউরোপ শরণার্থীদের আশ্রয় দিতে অস্বীকৃতি জানালে চাপে পড়ে যাবে জার্মানি। এ কারণে জঙ্গিদের সঙ্গে শরণার্থীদের এক করে দেখার প্রবণতা ঠেকাতে তৎপর বার্লিন ।

জার্মানির বিচারমন্ত্রী হাইকো মাস সোমবার বলেছেন, প্যারিসে হামলা চালানো জঙ্গি আর ইউরোপে আশ্রয় নিতে আসা উদ্বাস্তুদের মধ্যে তড়িঘড়ি কোনও যোগসূত্র খুঁজে বের করাটা ঠিক হবে না। কারণ, জঙ্গি গোষ্ঠী ইসলামিক স্টেট (আইএস) শরণার্থী সমস্যা নিয়ে ইউরোপীয় ইউনিয়নের সদস্য দেশগুলোর মধ্যে চলমান বিতর্ক উসকে দিয়ে সেই পরিস্থিতির সুযোগ নিতে চায়।

এর আগে জার্মানির স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী এবং প্রতিরক্ষামন্ত্রীও অনেকটা এই সুরেই কথা বলেছিলেন।

প্যারিসে হামলাকারী এক আত্মঘাতী জঙ্গির কাছ থেকে সিরীয় পাসপোর্ট পাওয়ার পর ইউরোপের দেশগুলোতে শরণার্থী বিশেষ করে শরণার্থীদের বিরোধী বিদ্বেষ ছড়িয়ে পড়ছে। ফরাসি পুলিসের একাংশের ধারণা, অন্তত একজন জঙ্গি সিরীয় শরণার্থীদের ভিড়ের সঙ্গে মিশে ফ্রান্সে ঢুকে পড়েছিল। তবে শুরু থেকেই এই ধারণার বিরোধিতা করছে জার্মানি ও যুক্তরাষ্ট্র।

সোমবার জার্মান বিচারমন্ত্রী সরকারি বেতার সংস্থা এ আর ডি’কে বলেছেন, খুব সতর্কভাবে এই পরিস্থিতি সামাল দিতে হবে। কারণ আই এস জঙ্গিরা কুখ্যাত জাল পাসপোর্টের মতো ভুয়া সূত্র ছড়িয়ে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করতে চায়।

এর আগে ইউরোপীয় কমিশনের প্রেসিডেন্টও একই কথা বলেছেন। তাদের আশঙ্কা, জঙ্গি হামলার ভয়ে ইউরোপের দেশগুলো যদি শরণার্থীদের ঢুকতে না দেয়, তা হলে গোটা বিশ্ব জুড়ে এক ভয়াবহ সঙ্কট তৈরি হবে। এর ফলে প্রকারান্তরে লাভবান হবে আই এস জঙ্গিরাই।






মন্তব্য চালু নেই