মেইন ম্যেনু

শরীরের নিম্নাঙ্গে তিল? জেনে নিন কোন তিলের কী অর্থ…

শরীরের ঊর্ধ্বাঙ্গের তিলের কী মানে তা অনেকেই জানেন কিন্তু শরীরের নিম্নাঙ্গে তিল? এই নিয়ে বেশি আলোচনা হয় না। বিশেষ করে শরীরের গোপন অংশে তিল নিয়ে তো নয়ই। অথচ এই তিলগুলি দেখে নিজেকে নতুন করে যেমন জানা যায় তেমনই সঙ্গীর সম্পর্কেও অনেক কিছু ধারণা করা যায়—

১) পেটের ডানদিকে তিল থাকলে অর্থ উপার্জন ভাল হয় আবার পেটের বাঁদিকে তিল থাকলে সেই ব্যক্তি খুব হিংসুটে স্বভাবের হন, যাঁরা ফাটকায় টাকা রোজগার করতে চান।

২) নাভির একেবারে কাছে তিল থাকলে সেই মানুষটি খুব বিলাসবহুল জীবন পছন্দ করেন। এঁরা খুব ঝগড়ুটেও হন।

৩) শিরদাঁড়ার কাছে তিল মানেই তাঁর মন্ত্রী-সান্ত্রী গোছের হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। না-হলেও তাঁর বিরাট নামডাক তো হবেই।

৪) পিঠের ডানদিকে তিল থাকলে শরীর-স্বাস্থ্য ভাল থাকে এবং এই ধরনের মানুষ বেশ সাহসী হন। আবার পিঠের বাঁদিকে তিল থাকলে তাঁরা কূটনীতিতে পারদর্শী হন।

৫) ডানদিকের থাইতে তিল থাকলে তাঁর বিদেশযাত্রার সম্ভাবনা থাকে। আবার বাঁদিকে তিল থাকলে তিনি কোনও একটি শিল্পে পারদর্শী হন এবং খানিকটা অলস স্বভাবেরও হয়ে থাকেন।

৬) ডানদিকের পায়ের ডিমে বা কাফ মাসলে তিল থাকলে জীবনের প্রায় সব কাজেই সাফল্য আসবে সহজে। এঁরা রাজনীতিতেও উৎসাহী হন। বাঁদিকের কাফ মাসলে তিল থাকলে চাকরিসূত্রে দেশ-বিদেশ ঘোরার সম্ভাবনা থাকে।

৭) ডানদিকের গোড়ালিতে যাঁদের তিল থাকে তাঁরা খুব দূরদৃষ্টিসম্পন্ন হন। এঁরা আধাত্ম্যে বিশ্বাসী হন এবং এঁদের জীবনে প্রাচুর্য আসার সম্ভাবনা থাকে। বাঁদিকের গোড়ালিতে তিল থাকলে সেই ব্যক্তি ঈশ্বরের প্রতি নিবেদিতপ্রাণ হয়ে থাকেন। এঁরা খুব কম কথা বলেন তবে জীবনে কখনও না কখনও আইনি সমস্যায় পড়তে হয়।

৮) ডানদিকের পায়ের পাতায় তিল থাকলে সুখী জীবন এবং মনের মতো জীবনসঙ্গী বা জীবনসঙ্গিনী পাওয়া যায়। বাঁদিকের পায়ের পাতায় তিল থাকলে জীবনে অর্থকষ্ট থাকতে পারে এবং অন্যের হিংসা ও দ্বেষের শিকার হতে পারেন সেই ব্যক্তি।

৯) পায়ের পাতার তলার দিকে তিল থাকলে সত্যিই পায়ের তলায় সর্ষে লাগানো থাকে। তিনি ঘুরে বেড়াতে ভালবাসেন। তবে জীবনে প্রচুর শত্রু থাকে।

১০) ডানদিকের নিতম্বে তিল জ্ঞান এবং সৃজনশীলতার প্রতীক। এঁরা বেশিরভাগই শিল্পী হন। বাঁদিকের নিতম্বে তিলের অর্থ দারিদ্র্য।

১১) যৌনাঙ্গে তিল থাকলে সেই ব্যক্তির যৌনক্ষুধা প্রবল হয়। এঁরা বিবাহিত মহিলা বা পুরুষদের প্রতি আকৃষ্ট হন।
** সব ব্যাখ্যাই প্রচলিত ভারতীয় মত অনুযায়ী দেওয়া হল।






মন্তব্য চালু নেই