মেইন ম্যেনু

শহীদদের তালিকা চাইলেন নজরুল ইসলাম

মুক্তিযোদ্ধাদের মতো স্বাধীনতা যুদ্ধে শহীদদের তালিকা তৈরির দাবি জানিয়েছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান।

তিনি বলেন, ‘আমরা যারা মুক্তিযুদ্ধ করেছি, তাদের তালিকা হয়েছে, হচ্ছে। আমরা ভাতা পাচ্ছি। কিন্তু যারা শহীদ তাদের সম্মান জানানো কি আমাদের কর্তব্য নয়?

শনিবার ‍দুপুরে রাজধানীর ফটো জার্নালিস্ট অ্যাসোসিয়েশন মিলনায়তনে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে রাষ্ট্রদ্রোহ মামলার প্রতিবাদে জাতীয় গণতান্ত্রিক পার্টি (জাগপা) ঢাকা মহানগর শাখা আয়োজিত এক প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এ দাবি জানান।

মুক্তিযুদ্ধে যারা জীবন দিয়েছেন তাদের নাম লিপিবদ্ধ করার দাবি জানিয়ে নজরুল ইসলাম বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু সরকারের আমলে শহীদদের তালিকা তৈরির জন্য সাত্তারের নেতৃত্বে ১২ সদস্যে বিশিষ্ট কমিটি হয়েছিল। তারা প্রথমে ২৮ হাজার নাম লিপিবদ্ধ করেছিল। কিন্তু এটা কারো কাছে বিশ্বাসযোগ্য ছিল না। পরে বলা হলো যাদের নাম পাওয়া যাবে তাদের টাকা দেয়া হবে। এ ঘোষণার পর এক থেকে দুই লাখ কয়েক হাজারের নাম পাওয়া গেছে। ডেভিড ফ্রস্টের সঙ্গে কথা বলার সময় শেখ সাহেব বলেছিলেন তিন মিলিয়ন। এরপর থেকে সেটি বলা হয়। আমরাও বলি। কিন্তু সেই তালিকা তৈরির কাজ চালু থাকা উচিত ছিল।’

খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে করা রাষ্ট্রদ্রোহ মামলাকে অসম্মান ও অপমানজনক দাবি করে বিএনপির এই নেতা বলেন, খালেদা জিয়া শহীদদের সংখ্যা বলেননি। তিনি বলেছেন, বিতর্ক আছে। তার বক্তব্যে দেশদ্রোহীতার কোনো উপাদান নেই। সরকার তাকে ভয় পায়, রাজনীতি করতে দিতে চায় না। এই কারণে তার বিরুদ্ধে একের পর এক মামলা দেয়া হচ্ছে।

তিনি বলেন, ‘মামলা দিয়ে জনগণকে বিভ্রান্ত করা যাবে না। কারণ খালেদা জিয়া বাংলাদেশের সবচেয়ে জনপ্রিয় নেত্রী। তিনি জীবনে কোনো নির্বাচনে পরাজিত হননি। পাঁচ বারের নির্বাচনে তিনি ২৩টি আসনে নির্বাচিত হয়েছেন। এই রেকর্ড আর কারো নেই।’

জাগপা ঢাকা মহানগরের আহ্বায়ক আসাদুর রহমানের সভাপতিত্বে সমাবেশে আরও বক্তব্য দেন- জাগপা প্রধান শফিউল আলম প্রধান ও খন্দকার লুৎফর রহমান প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই