মেইন ম্যেনু

শাশুড়ির অত্যাচারেই আত্মহত্যা করেন সঙ্গীত পরিচালক রাজিবের স্ত্রী

শাশুড়ির নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে সঙ্গীত পরিচালক হিল্লোল দাশ রাজিবের স্ত্রী জয়া সেন আত্মহত্যা করেছেন বলে স্থানীয়দের অভিযোগ। এ ঘটনায় রমনা থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দায়ের করা হয়েছে।

সোমবার (৩০ মে) সকালে তথ্যটি নিশ্চিত করেন রমনা থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মশিউর রহমান।

তিনি জানান, ৩৩/বি, পশ্চিম মালিবাগে ২৭ মে রাতে জয়া সেন ফ্যানের সিলিংয়ে ঝুলে আত্মহত্যার চেষ্টা করেন। পরে গুরুতর অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে মলিবাগের ডা. সিরাজুল ইসলাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়।

সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায় শনিবার রাত ৩টায় তার মৃত্যু হয়। পরে রোববার দুপুরে লাশ ময়না তদন্তের জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) মর্গে নেয়া হয়।’

ওসি আরো জানান, এ ঘটনায় রোববার রাতে রমনা থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা দয়ের করা হয়েছে।

এদিকে স্থানীয়দের সাথে কথা বলে জানা যায়, সঙ্গীত পরিচালক হিল্লোল দাশ রাজিবের সাথে ১৪ বছর বয়সে বিয়ে হয় জয়া সেনের। তখন জয়া সপ্তম শ্রেণির ছাত্রী। তাদের সংসার এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে।

বিয়ের পরপরই শ্বশুর তার সব সম্পত্তি পুত্রবধূর নামে লিখে দেন। এরপর থেকেই জয়া সেনের ওপর নির্যাতন শুরু করেন শাশুড়ি। নির্যাতন সহ্য করতে না পেরে ২৭ মে জয়া সেন আত্মহত্যা চেষ্টা করেন।

জয়ার অভিমানের আরো একটি কারণ ছিল মেয়ে রাজশ্রী দাস স্রিজা। সিদ্ধেশ্বরী গার্লস স্কুল ও কলেজের নবম শ্রেণির ছাত্রী স্রিজার উচ্ছৃঙ্খল জীবনযাপনও মাকে ভাবীয়ে তুলে।

জানা গেছে, জয়া যেদিন আত্মহত্যার চেষ্টা করেন সেদিন তিনি সবার সঙ্গেই ভালো করে কথা বলেন। পরিচিতজনদের সঙ্গেও দেখা করেন। এমনকি রাতে খাবার টেবিলে স্বামী রাজিবের জন্য খাবার রেখে যান। এমনকি মেয়েকে নিজের দু’টি ছবিও দিয়ে যান।






মন্তব্য চালু নেই