মেইন ম্যেনু

শাহ আমানত বিমানবন্দরে ফ্লাইট বন্ধ

ঘূর্ণিঝড় ‘রোয়ানু’র কারণে চট্টগ্রামে ৭ নম্বর সতর্কতা সংকেত জারি করা হয়েছে। যার ফলে চট্টগ্রাম শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে সব ধরনের অপারেশনাল কার্যক্রম বন্ধের ঘোষণা করা হয়েছে।

শনিবার সকালে এক জরুরি বৈঠক শেষে সকাল সাড়ে ১০টা থেকে সব ধরনের অপারেশনাল কার্যক্রম বন্ধের ঘোষণা দেওয়া হয়।

বিমানবন্দরের সিভিল এভিয়েশন বিভাগের ম্যানেজার উইং কমান্ডার রিয়াজ উদ্দিন বলেন, জরুরী বৈঠকের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী সকাল সাড়ে দশটা থেকে ফ্লাইট উঠা নামাসহ বিমানবন্দরের সব অপারেশনাল কার্যক্রম বন্ধ রাখার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিয়েছি। সেটি আজকের দিন পর্যন্ত বলবৎ থাকবে।’

ঘূর্ণিঝড়টি ঘণীভূত হয়ে পূর্ব-উত্তরপূর্ব দিকে অগ্রসর হয়ে শনিবার সকাল থেকে দুপুর নাগাদ বরিশাল-চট্রগ্রাম উপকূল অতিক্রম করতে পারে। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৫৪ কি.মি. এর মধ্যে বাতাসের সর্বোচ্চ একটানা গতিবেগ ঘন্টায় ৬২ কি.মি. যা দমকা অথবা ঝড়োহাওয়ার আকারে ৮৮ কি.মি. পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে।

এদিকে ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে উপকূলের বিভিন্ন এলাকায় প্রচণ্ড বাতাস শুরু হয়েছে। শনিবার ভোর থেকে চট্টগ্রামে মাঝারি বৃষ্টি ঝরছে।

ঘূর্ণিঝড়ের সতর্কতা সম্পর্কে আবহাওয়া অফিস জানায়, ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের নিকটবর্তী এলাকায় সাগর খুবই উত্তাল রয়েছে। চট্টগ্রাম, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে ৭ (সাত) নম্বর বিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। কক্সবাজার সমুদ্রবন্দরকে ৬ নম্বর বিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই