মেইন ম্যেনু

শিক্ষককে ধর্ষণের দায়ে কিশোরের যাবজ্জীবন

স্কুলের শিক্ষিকাকে ধর্ষণ ও হত্যার দায়ে যুক্তরাষ্ট্রের এক কিশোরকে শুক্রবার যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছে দেশটির আদালত। আদালতের রায় অনুযায়ী, ৪০ বছরের মধ্যে প্যারোলে মুক্তির কোনো সুযোগও পাবে না দণ্ডিত ওই কিশোর।

তবে ফিলিপের আইনজীবীদের দাবি, ধর্ষণের সময় অভিযুক্ত ফিলিপের মানসিক অবস্থা স্বাভাবিক ছিল না। তারা আরো দাবি করেন, একজন কিশোরের মস্তিষ্ক পূর্ণভাবে বিকশিত হয় না।

কিন্তু আদালতের বিচারক ও বিচারকগণ এই দাবি আমলে নেননি। আদালতের নির্দেশে অনুসারে, হত্যার জন্য ২৫ বছর ও ধর্ষণের জন্য আরো ১৫ বছর, মোট ৪০ বছর সময় বিনা প্যারোলে কারাবাস করতে হবে ফিলিপকে। তার বয়স ৫০ এর কোঠায় পৌঁছাবার পর সে কারাগারের বাইরে বের হতে পারবে।

তবে স্কুল শিক্ষিকা কলিনের মা এই রায়ে অসন্তোষ প্রকাশ করেছেন। তিনি যুক্তরাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আদালতকে এ জন্য দায়ী করেন। কেননা, ২০১৩ সালে কিশোর অপরাধীদের বিনাপ্যারোলে যাবজ্জীবন কারাদণ্ডে দণ্ডিত করা যাবে না বলে রায় দেয় যুক্তরাষ্ট্রের সুপ্রিম কোর্ট।

ব্রিটিশ গণমাধ্যম গার্ডিয়ান জানিয়েছে, যুক্তরাষ্ট্রের ম্যাসাচুসেটসের ডেনভার হাই স্কুল শিক্ষক কলিন রিজার একই স্কুলের ছাত্র ফিলিপ শিজমের দ্বারা নৃশংসভাবে ধর্ষিত ও নিহত হন। এই হত্যাকাণ্ডের সময় নিহত কলিনের বয়স ছিল ২৪বছর এবং ফিলিপের বয়স ছিল মাত্র ১৪ বছর। প্রসঙ্গত, এর আগে শুক্রবার, কলিনের পরিবারের প্রতি সহানুভুতি প্রকাশ করে এক বিবৃতি দেন ধর্ষক ফিলিপের মা।






মন্তব্য চালু নেই