মেইন ম্যেনু

শিক্ষকদের জাতীয় বেতনক্রমেই থাকতে হবে: ঢাবি ভিসি

বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকদের জাতীয় বেতনক্রমের মধ্যেই থাকতে হবে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) উপাচার্য (ভিসি) অধ্যাপক আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক।

বুধবার দুপুরে উপাচার্য দপ্তরে এক সংবাদ সম্মেলনে এসব কথা বলেন তিনি। ‘উচ্চ শিক্ষার মানোন্নয়ন ও কার্যকর নেতৃত্ব গড়ে তোলার পরিকল্পনা’ শীর্ষক সম্মেলনের সুপারিশ তুলে ধরতে সংবাদ সম্মেলনটি আয়োজিত হয়।

ভিসি বলেন, “জাতীয় বেতনক্রম কীভাবে বাস্তবায়ন করা হবে সেটা একটা প্রশ্ন। আর এ জন্যই্ বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষকরা আন্দোলন করছেন। তবে আমাদের লক্ষ্য থাকবে পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের জন্য স্বতন্ত্র বেতন কাঠামো।”

ড. আরেফিন সিদ্দিক বলেন, “অষ্টম জাতীয় বেতন কাঠামোর জন্য ফরাসউদ্দিন কমিশন তার সুপারিশে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব আয় বাড়ানোর কথা বলেছেন। নিজস্ব আয় বাড়ানোর জন্য যদি আমরা ছাত্রদের টিউশন ফি বাড়াই, সেটা কি সম্ভব হবে? আমেরিকাসহ বিভিন্ন দেশে একই বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সাবজেক্টের শিক্ষকদের মধ্যে বেতন বিভিন্ন রকম হয়। আমরা যদি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে মেধাবী শিক্ষক আনতে চাই তবে তো তাদের সেই সুযোগ-সুবিধা দিতে হবে।”

ঢাবির সাবেক ৬০ জন শিক্ষকের কাছে বিশ্ববিদ্যালয়ে বকেয়া পাওনা প্রসঙ্গে ভিসি বলেন, “যে মাতৃসম ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে তারা পড়াশোনা করেছেন, তার পাওনা টাকা তারা পরিশোধ করবেন না এটা তো হতে পারে না। এই পাওনা টাকা তাদের মাসিক উপার্জনের তুলনায় খুবই সামান্য। তাদের বারবার নোটিশ দেয়া সত্ত্বেও বকেয়া টাকা পরিশোধ করেননি তারা।” কিছুদিন পর ওই সব শিক্ষকের বিরুদ্ধে অর্থ জালিয়াতির মামলা করা হবে বলে জানান ভিসি।

সংবাদ সম্মেলনে ‘উচ্চ শিক্ষার মানোয়ন্নয় ও কার্যকর নেতৃত্ব গড়ে তোলার পরিকল্পনা’ শীর্ষক সম্মেলনের সুপারিশগুলো তুলে ধরেন যুক্তরাষ্ট্রের মনমাউথ বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক গোলাম মো. মাতবর।






মন্তব্য চালু নেই