মেইন ম্যেনু

শিক্ষকের বিরুদ্ধে মিথ্যা যৌন হয়রানির অভিযোগ, রাবি ছাত্রী স্থায়ী বহিষ্কার

ইয়াজিম ইসলাম পলাশ, রাবি প্রতিনিধি : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের এক শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির মিথ্যা অভিযোগ আনায় এক ছাত্রীকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে স্থায়ী বহিস্কার করা হয়েছে।

রোববার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক মুহম্মদ মিজানউদ্দিনের সভাপতিত্বে প্রশাসন ভবনে অনুষ্ঠিত ৪৬৭তম সিন্ডিকেট সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

যৌন হয়রানির মিথ্যা অভিযোগকারী শিক্ষার্থী হলেন, শাপলা সুলতানা সাফিয়া। তিনি বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাষা (উর্দূ) বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের শিক্ষার্থী।

একই সঙ্গে বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের কর্মী এবং রোকেয়া হলের আবাসিক শিক্ষার্থী।

সিন্ডিকেট সদস্য ও বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য অধ্যাপক চৌধুরী সারওয়ার জাহান বলেন, ‘শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির বিষয়টি মিথ্যা প্রমাণ হওয়ায় সিন্ডিকেট সদস্যদের সর্বসম্মতিক্রমে অভিযোগকারী ওই ছাত্রীকে (শাপলা) বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আজীবনের জন্য বহিস্কার করা হয়েছে।

এর আগে সিন্ডিকেট থেকে ওই ছাত্রীকে কারণ দর্শানোর নোটিশও দেয়া হয়েছিলো বলে জানান তিনি।

গত বছরের ২০ ডিসেম্বর বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের কাছে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ দিয়েছিলো শাপলা।

ঘটনাটি তদন্ত করতে গত বছরের ২৬ ডিসেম্বর তিন সদস্যবিশিষ্ট একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। কমিটিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের তৎকালীন ছাত্র-উপদেষ্টা অধ্যাপক ছাদেকুল আরেফিনকে আহ্বায়ক করে তৎকালীন প্রক্টর অধ্যাপক তারিকুল হাসান ও সাবেক সিন্ডিকেট সদস্য ইনফরমেশন সায়েন্স অ্যান্ড লাইব্রেরি ম্যানেজমেন্ট বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মো. উজ্জ্বল হোসেনকে সদস্য করা হয়।

কমিটির সদস্যরা ওই ঘটনা তদন্ত করে শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির কোনো অভিযোগের সত্যতা পায়নি। এরপর তারা বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেটের কাছে তদন্ত রিপোর্ট জমা দেয়। রিপোর্ট পাওয়ার পর বিশ্ববিদ্যালয়ের ৪৬৪তম সিন্ডিকেটে বিষয়টি উত্থাপান করা হয়। সেখান থেকে ওই ছাত্রীকে সাত দিনের মধ্যে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেয়া হয়।

সেই নোটিশের উত্তর পাওয়ার পর রোববার সিন্ডিকেটে তাকে বিশ্ববিদ্যালয় থেকে আজীবনের জন্য বহিস্কার করা হয়।

এর আগে ওই ছাত্রী শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ তোলার পর বিশ্ববিদ্যালয়ে লাগাতার কর্মসূচি পালন করেছিল বিশ্ববিদ্যালয় শাখা ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা।

ইসলামের ইতিহাস বিভাগের ওই শিক্ষককে বহিস্কারের দাবিতে গণস্বাক্ষর কর্মসূচি পালন ও বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন ভবন ঘেরাও করেছিল ছাত্রলীগ।






মন্তব্য চালু নেই