মেইন ম্যেনু

শিক্ষার হার বাড়লেও মান কাঙ্ক্ষিত নয়

দেশে শিক্ষার হার বাড়লেও গুণগত মান বাড়েনি উল্লেখ করে শিক্ষাক্ষেত্রে বিনিয়োগ বাড়ানোর আহ্বান জানিয়েছেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ।

বুধবার বিকেলে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে পঞ্চম সমাবর্তন অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে তিনি এ আহ্বান জানিয়েছেন।

রাষ্ট্রপতি বলেছেন, শিক্ষার হার বৃদ্ধি পেলেও, গুণগত মান কাঙ্ক্ষিত স্থানে পৌঁছায়নি। শিক্ষার মান বাড়াতে বিনিয়োগ বাড়াতে হবে। তবেই দেশের শিক্ষাব্যবস্থা আরও এগিয়ে যাবে।’

রাষ্ট্রপতি আরো বলেন, ‘শিক্ষায় বিনিয়োগের রিটার্ন নয়গুণ। গুণগত শিক্ষার পাশাপাশি জ্ঞানভিত্তিক সমাজ প্রতিষ্ঠার মাধ্যমে এ রিটার্ন অর্জন সম্ভব। শিক্ষক যখন তার মহান আদর্শ থেকে দূরে চলে যান, তখন শিক্ষার্থীদের মধ্যে তার নেতিবাচক প্রভাব পড়ে। তাই আদর্শের প্রতি অবিচল থেকে জ্ঞান অর্জন ও বিতরণে শিক্ষকমণ্ডলী নিবেদিত থাকবেন- জাতি তা প্রত্যাশা করে।’

তাই শ্রেণিকক্ষে পাঠদানের মধ্যে শিক্ষকদের দায়িত্ব সীমাবদ্ধ না রেখে ছাত্র-ছাত্রীদের প্রতি আরও মনোযোগী হওয়ার আহ্বান জানান রাষ্ট্রপতি।

রাষ্ট্রপতি বলেন, ‘খুলনা অঞ্চলে রয়েছে জীব বৈচিত্র্যের সমৃদ্ধ সুন্দরবন ও সামুদ্রিক সম্পদ সমৃদ্ধ বিশাল উপকূল। এটি নিয়ে কাজ করতে হবে।’ খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের গবেষকদের এ বিষয়ে গবেষণা জোরদারের আহ্বান জানান তিনি।

গবেষণা খাতে অর্থ বরাদ্দের আহ্বান জানিয়ে আবদুল হামিদ বলেন, ‘গবেষণা নিরন্তন সাধনার বিষয়। তাতে প্রচুর অর্থেরও প্রয়োজন। আমি সরকার এবং বিশেষ করে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনকে গবেষণা খাতে অর্থ বরাদ্দ ও প্রয়োজনীয় সহায়তা ও পরামর্শ প্রদানের আহ্বান জানাই।’

অনুষ্ঠানে খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে উপাচার্য্য প্রফেসর ড. মোহাম্মদ ফায়েকুজ্জামান বিশ্ববিদ্যালয়ের গত ২৫ বছরের সাফল্য তুলে ধরে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন সমস্যা সমাধানে রাষ্ট্রপতির সহযোগিতা কামনা করেন।

সমাবর্তনে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রফেসর ড. আনিসুজ্জামান, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ট্রেজারার খান আতিয়ার রহমানসহ মন্ত্রী, সংসদ সদস্য, রাজনৈতিক নেতা, ঊর্ধ্বতন সামরিক ও বেসামরিক কর্মকর্তা, বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক, শিক্ষার্থী ও কর্মকর্তা-কর্মচারীরা উপস্থিত ছিলেন।

অনুষ্ঠানে ২০১১ থেকে ২০১৫ সাল পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের চার হাজার ৫৩৯জনের মধ্যে আড়াই হাজার গ্রাজুয়েটকে সনদ এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন অনুষদের পরীক্ষায় অসাধারণ কৃতিত্বের জন্য ১৪ জনকে স্বর্ণপদক ও একজনকে পিএইচডি ডিগ্রি প্রদান করেন রাষ্ট্রপতি।

এর আগে নবনির্মিত বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের উদ্বোধনফলক উন্মোচন করেন তিনি।






মন্তব্য চালু নেই