মেইন ম্যেনু

শিশুদের হাতেখড়ি দেবে রোবট

বিজ্ঞানীরা নতুন একটি উজ্জ্বল রঙের রোবট তৈরি করেছেন। এটি শিশুদের পড়ানোর জন্য এবং পড়াশোনাতে উৎসাহ জাগানোর জন্য কাজ করবে। শিশুর মানসিক প্রতিক্রিয়া রোবটটি শনাক্ত করতে পারবে।

ম্যাসাচুসেটস ইন্সটিটিউট অব টেকনোলজি (এমআইটি) এবং ইসরাঈলের তেল আবিব ইউনিভার্সিটির গবেষকরা যৌথভাবে একটি রোবট তৈরি করেছেন। রোবটটির নাম দেয়া হয়েছে, টেগা। এই রোবটটি ব্যক্তিগতভাবে বা সমস্টিগত শিক্ষা দান করতে পারবে।

বিজ্ঞানীরা একটি শ্রেণিকক্ষে রোবটটি পরীক্ষা করে দেখেছেন। বিজ্ঞানীরা দেখলেন, রোবটটি নতুন কিছু শিখতে এবং নিজের উন্নতি সাধন করতে পারে। স্বতন্ত্র শব্দগুলোকে আলাদাভাবে শনাক্ত করতে পারে রোবটটি।

এতে প্রমাণিত হয় এটি শিক্ষার্থীদের ইতিবাচক আচরণ বুঝতে সমর্থ হয় এবং একটি রোবট অ্যাসিস্ট্যান্ট হিসেবে কাজ করে। গত বছর যুক্তরাষ্ট্রে বোস্টনের একটি স্কুলে ৩৫ জন শিক্ষার্থীর ওপর রোবটটি শিক্ষকের ভূমিকায় কাজ করে।
৩ থেকে ৫ বছরের শিশু শিক্ষার্থীরা টেগার সাথে প্রত্যেকে ১৫ মিনিট করে সময় অতিবাহিত করে এক সপ্তাহ ধরে।

টেগা একটি অ্যানড্রয়েড ডিভাইসের সাহায্যে শিশুদের চলাফেরা, আচরণ এবং চিন্তা ভাবনা পর্যবেক্ষণ করে। এটি একটি দ্বিতীয় প্রজন্মের অ্যানড্রয়েড ফোনের কাস্টম সফটওয়্যার যা দিয়ে টেগার চেহারাতেও ইমোশন দেয়া হয়।

শিক্ষার্থীরা রোবট শিক্ষকের কাছ থেকে ট্যাবলেট পিসির মাধ্যমে স্প্যানিশ শব্দার্থ শেখে। এমনও হতে পারে ভবিষ্যত শ্রেণি কক্ষগুলো তে মানুষের বদলে পাঠ দান করছে কোন রোবট শিক্ষক।






মন্তব্য চালু নেই