মেইন ম্যেনু

শিশুর মিথ্যে বলা থামাবেন যেভাবে

আমাদের সন্তান আমাদের সম্পদ। আমরা সারাক্ষণ তাদের খেয়াল রাখি। সঠিক শিক্ষায় শিক্ষিত করার চেষ্টা থাকে আপ্রাণ। তনু কীভাবে যেন সব নিয়ন্ত্রণে থাকে না আমাদের। শিশুরা কোন না কোনভাবে মিথ্যা বলতে শিখে যায়। আদরের সন্তানটি যখন অকপটে মিথ্যা বলে তখন মনে ভর করে তীব্র কষ্ট। ভয় লাগে, শুধরে যাবে তো! নাকি আরও খারাপ কিছু শিখবে দিনে দিনে!

আসুন জেনে নিই কী করবেন সন্তান যখন মিথ্যে বলতে শুরু করে।

মারধর করবেন না
মিথ্যা বলছে বলে তাকে মারধর করবেন না। বরং তাকে বুঝিয়ে বলুন। আপনি তাকে বিশ্বাস করেন, এর মর্যাদা দিতে শেখান। শিশুরা জটিল কোন কিছুই বোঝালে বুঝবে না। তাকে নানান গল্পে, কাহিনী দিয়ে বোঝান সবসময় সত্য বলা কেন ভাল। ভাল ভাল গল্পের বই পড়ে শোনান, পড়তে দিন। এমন বই যা শুধু কল্প রাজ্যের রাজা-রানীর কথা বলে না। বরং ন্যায়বোধ তৈরি করে।

নিজেরা মিথ্যা বলবেন না
শিশুকে মিথ্যা আশ্বাস দেওয়া, মিথ্যা গল্প বলা অথবা শিশুর সামনে মিথ্যা বলা থেকে বিরত থাকুন। শিশু সেটাই শেখে যা সে দেখে। আপনারা শিশুর সামনে মিথ্যার চর্চা করতে থাকলে সেও মিথ্যা বলবে। সব সময় সৎ থাকুন। শিশুর সামনে অন্তত নিজেদের সমস্যাগুলো নিয়ে আসবেন না। আপনি হয়ত ভাল-মন্দ বুঝে মিথ্যা বলছেন। শিশু তো না বুঝেই সেটা চর্চা করবে এবং তার ক্ষেত্রে ফলাফল নিশ্চয়ই সবসময় ভাল হবে না।

শিশুর দিকে মনোযোগ দিন
শিশু কি করছে খেয়াল করুন। তার সামনে টাকা-পয়সা ফেলে রাখবেন না। তাকে খেলনার দোকানে বার বার নিয়ে যাবেন না। আমরা বাব-মায়েরা দেখা যায় অনেক শপিং করি আর শিশুদের ইচ্ছামত শপিং মলে ঘুরে বেড়াতে দিই। নানান রকম খেলনা দেখে তার মধ্যে সেগুলো পাওয়ার চাহিদা তৈরি হয়। আরও ছোট-খাট ভুল আমরা অবচেতন মনে করে যাই। কিন্তু এগুলো শিশুর মাঝে আরও পাওয়ার আকাঙ্ক্ষা তৈরি করে। তার সাথে সাথে থাকুন। সে যেন বুঝতে পারে মিথ্যা বলে সে পার পাবে না, আপনি ঠিকই ধরে ফেলবেন।






মন্তব্য চালু নেই