মেইন ম্যেনু

শিশু পুষ্টি খাতে ১ বিলিয়ন ডলার বেশি সহায়তা দেবে বিশ্ব ব্যাংক

আগামী দুই বছরে শিশু পুষ্টি খাতে বাংলাদেশকে বর্তমানের চেয়েও ১ বিলিয়ন ইউএস ডলার (১০০ কোটি ডলার) বেশি সহায়তা দেবে বিশ্ব ব্যাংক। বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশে বিশ্ব ব্যাংকের সহায়তার ফোকাস হবে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলা।

সোমবার সকালে সচিবালয়ে এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে বিশ্ব ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট জিম ইয়ং কিম এ কথা জানান। সচিবালয়ে সকাল পৌনে ৯টা থেকে পৌনে ১০টা পর্যন্ত অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিতের সঙ্গে বৈঠক করেন বিশ্ব ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট। পরে তারা যৌথ সংবাদ সম্মেলনে বক্তব্য দেন।

সংবাদ সম্মেলনে জিম ইয়ং কিম বলেন, শিশু পুষ্টি খাতে বাংলাদেশকে আগামী দুই বছরে বর্তমানের চেয়েও ১০০ কোটি ডলার বেশি সহায়তা দেবে বিশ্ব ব্যাংক। ভবিষ্যতে বিশ্ব ব্যাংকের বিভিন্ন দেশকে সহায়তা করার তহবিল ৫০ শতাংশ বাড়ানো হবে। সেই ধারাবাহিকতায় বাংলাদেশও আরও বেশি সহায়তা পাবে। বিশ্বব্যাংক এমনিতেই বাংলাদেশকে বড় ধরনের সহায়তা দেয়। ভবিষ্যতে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলা সহায়তার ফোকাস হবে।

বিশ্ব ব্যাংক তিন বছরের প্যাকেজে ইন্টারন্যাশনাল ডেভেলপমেন্ট অ্যাসিসটেন্স (আইডিএ) হিসেবে বাংলাদেশকে ঋণ দিয়ে থাকে। এর অংশ হিসেবে গত ২০১৫-১৬ অর্থবছরে বাংলাদেশকে ১ দশমিক ১৮ বিলিয়ন ডলার ঋণ সহায়তার প্রতিশ্রুতি দিয়ে শেষ পর্যন্ত ১ দশমিক ১৬ বিলিয়ন ডলার ছাড় করেছিল বিশ্ব ব্যাংক।

বর্তমানে যে আইডিএ প্যাকেজ চলছে, তার মেয়াদ শেষ হবে আগামী অর্থবছরে। এরপর ২০১৭-১৮ অর্থবছরে বাংলাদেশের জন্য বিশ্ব ব্যাংকের এই স্বল্প সুদের ঋণ-সহায়তার পরিমাণ এখনকার তুলনায় দ্বিগুণ করা হবে বলে প্রতিশ্রুতি দেন কিম।

দীর্ঘ টানাপোড়েনের পর পদ্মা সেতুতে বিশ্ব ব্যাংকের অর্থায়ন বাংলাদেশ ফিরিয়ে দেওয়ার বিষয়ে প্রতিক্রিয়া জানতে চাইলে সরাসরি উত্তর দেননি কিম।

তিনি বলেন, আমরা বাংলাদেশের উন্নয়নের সঙ্গেই আছি। জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলা, অবকাঠামো উন্নয়নসহ বিভিন্ন খাতে আমাদের সহযোগিতা অব্যাহত রয়েছে। এ বিষয়ে অর্থমন্ত্রীর সঙ্গেও আলোচনা হয়েছে।

আজ ‘আন্তর্জাতিক দারিদ্র্য বিমোচন দিবস’। দিবসটি এ বছর ঢাকায় পালন করছে বিশ্ব ব্যাংক। রাজধানীর ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে আজ বেলা তিনটায় রয়েছে ‘দারিদ্র্যমুক্ত বিশ্বে বাংলাদেশ’ শীর্ষক গণবক্তৃতা। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি থাকবেন। এতে বিশেষ বক্তব্য দেবেন দক্ষিণ কোরিয়ায় জন্মগ্রহণকারী দ্বিতীয় দফায় নিয়োগ পাওয়া বিশ্ব ব্যাংকের প্রেসিডেন্ট জিম ইয়ং কিম। এ সময় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করবেন বিশ্বব্যাংকের নতুন প্রধান অর্থনীতিবিদ পল রোমার।






মন্তব্য চালু নেই