মেইন ম্যেনু

শি জিনপিংয়ের আগমনে নতুন সাজে ঢাকা

চীনা প্রেসিডেন্ট শি জিনপিংয়ের আগমনে নতুন সাজে সেজেছে ঢাকা শহর।

রাষ্ট্রপতি হিসেবে চীনা প্রেসিডেন্টের এটিই প্রথম সফর। শি জিনপিং হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে হোটেল লা মেরিডিয়ানে যাবেন। সেখান থেকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়, বঙ্গভবন ও জাতীয় স্মৃতিসৌধে যাবেন।

চীনা প্রেসিডেন্টের এই সফরকে ঘিরে ঢাকা শহরের প্রধান প্রধান সড়কে দুই দেশের পতাকা, নানা ধরনের ব্যানার, ফেস্টুন, প্লাকার্ড, শি জিনপিং, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদের ছবি দিয়ে সাজানো হয়েছে। নানা রঙের বাতি দিয়ে আলোক সজ্জা করা হয়েছে।

বিমানবন্দরের ভিভিআইপি গেটেও টাঙানো হয়েছে বড় আকারের তিন নেতার তিনটি ছবি। ওভার ব্রিজগুলোতে টাঙানো হয়েছে ‘বাংলাদেশ-চীন মৈত্রী দীর্ঘজীবী হোক’ লেখা ব্যানার। একই স্লোগান আছে বিমানবন্দরের প্রবেশদ্বারেও।

শি জিনপিং ঢাকায় অবস্থান করবেন হোটেল লা মেরিডিয়ানে। সেটিও সাজানো হয়েছে বর্ণিল সাজে। হোটেলের বাইরে টাঙানো হয়েছে রাষ্ট্রপতি আব্দুল হামিদের ছবির সঙ্গে শি জিনপিংয়েরও একটি বিশাল ছবি। হোটেলের মূল ফটকে রয়েছে আরো একটি ছবি।

চীনা প্রেসিডেন্টের সড়ক যাত্রা আরামদায়ক করতে বিমানবন্দর থেকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় এবং অন্য যাত্রাপথের ‘স্পিড ব্রেকার’ গুলো তুলে দেওয়া হয়েছে।

কর্মরতদের একজন বলেন, চীনের প্রেসিডেন্টের আগমন উপলক্ষে তার চলার পথে থাকা সব গতিরোধক তুলে দিয়ে পথকে আরামদায়ক করার নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। একই সঙ্গে সড়কের যে যে স্থানে ত্রুটি আছে তাও রাতের মধ্যে মেরামতের জন্য আমরা কাজ করেছি।

কুড়িল রেল গেটের বিমানবন্দর সড়কেও গতিরোধক তুলতে দেখা গেছে সিটি করপোরেশনের বুলডোজার দিয়ে।

দেখা যায়, বিমানবন্দর থেকে খিলক্ষেত পর্যন্ত রাস্তার দুই পাশ পরিষ্কার করা হয়েছে।

এ দিকে বিমানবন্দর সড়কের খিলক্ষেত ও লা মেরিডিয়ান হোটেলের সামনে সড়ক বিভাজন ভেঙ্গে ফেলে দুইটি সহজ চলাচল রাস্তাও করে দিয়েছে সড়ক জনপথ বিভাগ।

বিমানবন্দরে লাল গালিচা সংবর্ধনা নিয়ে শি উঠবেন বিমানবন্দর সড়কের লা মেরিডিয়ান হোটেলে। তার চলাচলের জন্য শুক্রবার সকাল ১০ টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টা ওই সড়কে যান চলাচল নিয়ন্ত্রণ করবে পুলিশ।

হোটেল থেকে বেলা ৩টার দিকে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে যাবেন চীনের প্রেসিডেন্ট। এরপর তিনি হোটেলে ফিরলে সেখানে তার সঙ্গে দেখা করতে যাবেন স্পিকার শিরীন শারমিন চৌধুরী ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

সন্ধায় বঙ্গভবনে দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে মিলিত হবেন দুই রাষ্ট্রপ্রধান মো. আবদুল হামিদ ও শি জিনপিং। সফররত প্রেসিডেন্টের সম্মানে দরবার হলে নৈশভোজ ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছেন বাংলাদেশের রাষ্ট্রপতি।

শনিবার সকালে সাভারে স্মৃতিসৌধে ফুল দিয়ে বাংলাদেশের স্বাধীনতা সংগ্রামের শহীদদের প্রতি শ্রদ্ধা জানাবেন চীনের প্রেসিডেন্ট। এর পরপরই ঢাকা ছেড়ে ভারতের উদ্দেশে রওনা হবেন তিনি।






মন্তব্য চালু নেই