মেইন ম্যেনু

‘শীঘ্রই আইএস-নুসরা দ্বন্দ্ব মিটছে না’

সিরিয়ায় আসাদ সরকারের বিরুদ্ধে লড়াইরত আইএস (ইসলামিক স্টেট) ও আল কায়েদার অনুগত নুসরা ফ্রন্টের মধ্যে শীঘ্রই সমঝোতার কোনো সম্ভাবনা নেই। নুসরা ফ্রন্টের প্রধান নেতা মোহাম্মদ আল-গোলানী আলজাজিরাকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে এ কথা বলেছেন।

কয়েক দিন আগে কাতারভিত্তিক আলজাজিরাকে এক সাক্ষাৎকার দেন গোলানী। ওই সাক্ষাৎকারের দ্বিতীয় কিস্তি গত বুধবার প্রচার করে টেলিভিশন চ্যানেলটি।

গোলানী বলেন, ‘এই মুহূর্তে তাদের (আইএস) সঙ্গে কোনো সমাধানে আসার সম্ভাবনা নেই। নিকট ভবিষ্যতেও এটা সম্ভব নয়।’

তিনি বলেন, ‘আমরা আশা করব তারা আল্লাহর কাছে অনুশোচনা প্রকাশ করবে এবং হুঁশ ফিরে আসবে। যদি তা না হয়, তাহলে আমাদের উভয়ের মধ্যে যুদ্ধ ছাড়া কোনো পথ নেই।’

সুন্নিভিত্তিক দল হলেও আইএস এবং আল কায়েদা ও এর সমর্থিত নুসরা ফ্রন্টের মতাদর্শে কিছুটা ভিন্নতা রয়েছে। আইএস মুসলিমদের মধ্যে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গাকে সমর্থন করলেও আল কায়েদা এর পক্ষপাতী নয়। দলটি বরং পশ্চিমা সেনা ও তাদের অনুগত সরকারের পতনের লক্ষ্যে হামলা চালিয়ে থাকে।

আঞ্চলিক শত্রু ইরান

সিরিয়ায় যুদ্ধরত আল কায়েদার অনুগত নুসরা ফ্রন্ট ইরানকে আঞ্চলিক শত্রু হিসেবে দেখে। গোলানী বলেন, শিয়া সংখ্যাগরিষ্ঠ ইরান সিরিয়ার আসাদ সরকারকে সহায়তা করে যাচ্ছে। দেশটিতে ইরান সেনা কর্মকর্তাদের পাঠানোর পাশাপাশি বিদ্রোহীদের সহযোগিতা করছে বলেও উল্লেখ করেন তিনি।

গোলানী জানান, আসাদ সরকারবিরোধী লড়াই চালিয়ে যাওয়া দলগুলোকে দমন করতে সরকারপন্থী বিদ্রোহী দলগুলোকে সহায়তা দিয়ে যাচ্ছে ইরান। ইরানী সহায়তাপুষ্ট বাহিনীর বিরুদ্ধে লড়াই চালিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছেন এ নেতা।

তিনি বলেন, ‘আমরা এ অঞ্চলে ইরানের অস্ত্র পাঠানো বন্ধ করব।’

তিনি আরও বলেন, ‘যুক্তরাষ্ট্র মধ্যপ্রাচ্যে অস্থিরতা সৃষ্টি করেছে।’

গোলানী বলেন, ‘তারা (যুক্তরাষ্ট্র) বলে, ইরান ইরাককে নিয়ন্ত্রণ করছে। আসলে সত্য হলো, যুক্তরাষ্ট্র ইরাক দখল করে তা ইরানের হাতে তুলে দিয়েছে।’






মন্তব্য চালু নেই