মেইন ম্যেনু

শুরুতেই মাশরাফি-সাকিবের জোড়া আঘাত

দলের বিপদের মুহূর্তে ব্যাট হাতে দারুণ এক ইনিংস খেলেছিলেন মাশরাফি বিন মুর্তজা। এরপর ইংল্যান্ডের বিপক্ষে বল হাতেও জ্বলে উঠলেন টাইগার অলরাউন্ডার। তিন ম্যাচ ওয়ানডে সিরিজের প্রথমটিতে শুরুতেই ইংলিশ শিবিরে আঘাত হেনে বাংলাদেশ শিবিরকে আনন্দে ভাসান ম্যাশ। এরপর প্রতিপক্ষ শিবিরে সাকিব আল হাসান আঘাত হেনে মিরপুরের হোম অব ক্রিকেটে আনন্দের ঢেউ তোলেন।

রোববার মিরপুরের হোম অব ক্রিকেটে আগে ব্যাটিংয়ে নেমে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৮ উইকেট হারিয়ে ২৩৮ রানের মাঝারি মানের সংগ্রহ দাঁড় করায় বাংলাদেশ। জবাবে ব্যাটিংয়ে নেমে শুরুতেই ওপেনার জেমস ভিন্সকে হারায় ইংলিশরা।

এই রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত ৪.৫ ওভার শেষে ইংল্যান্ডের সংগ্রহ ২ উইকেট হারিয়ে ১৩ রান। জেসন রয় ৭ ও জনি বেয়ারস্টো ০ রান নিয়ে ক্রিজে রয়েছেন। বেন ডাকেট ০ ও ভিন্স ফিরেছেন ৫ রান করে।

২৩৯ রানের লক্ষ্যে ব্যাটিংয়ে নেমে চতুর্থ ওভারেই উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। মাশরাফির করা চতুর্থ ওভারের চতুর্থ বলে ব্যাকওয়ার্ড পয়েন্টে মোসাদ্দেক হোসেনের হাতে ক্যাচ দিয়ে সাজঘরে ফেরেন ভিন্স। পরের ওভারের পঞ্চম বলে ডাকেটকে বোল্ড করে বাংলাদেশকে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ এনে দেন সাকিব।

এর আগে ১৬৯ রানে ৭ উইকেট হারিয়ে ধুঁকতে থাকা বাংলাদেশকে খাদের কিনার থেকে উদ্ধার করেন মাশরাফি। অষ্টম উইকেটে নাসির হোসেনকে নিয়ে ৪৯ বলে ৬৯ রানের দারুণ এক জুটি গড়েন ম্যাশ। মাশরাফির আগে মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ দায়িত্বশীল ইনিংস উপহার দেন।

বাংলাদেশের হয়ে মাহমুদউল্লাহ ৭৫ ও মাশরাফি করেন ২৯ বলে ৪৪ রান। এছাড়া মোসাদ্দেক ২৯ ও নাসির করেন ২৭ রান।

ইংল্যান্ডের হয়ে ক্রিস ওকস, জ্যাক বল ও আদিল রশিদ দুটি করে উইকেট নেন। একটি উইকেট নেন বেন স্টোকস।

সংগ্রহটা মাঝারিই! তবে লড়তে পারলে ক্রিকেটে নিজেদের দিনে সবই সম্ভব! ব্যাটিংয়ে হয়নি, বোলিংয়ে তাই নিজেদের দিনকে রাঙাবার পালা তাসকিন-সাকিবদের। নয়তো এক ম্যাচ হাতে রেখেই সিরিজ হাতছাড়া! ম্যাচের দ্বিতীয় ধাপে টাইগার বোলারদের এখন কঠিন পরীক্ষাই দিতে হবে।






মন্তব্য চালু নেই