মেইন ম্যেনু

শেখের বেটি পার্টি দেখেন না, মানুষ দেখেন : মতিয়া চৌধুরী

বর্তমান সরকার সমাজের সব শ্রেণি-পেশার মানুষের জন্য কাজ করছে জানিয়ে কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরী বলেছেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা সবাইকেই সমান চোখে দেখেন। তার জনবান্ধব কর্মসূচি থেকে কেউই বাদ পড়বেন না।

কুড়িগ্রামের চিলমারীতে অতিদরিদ্রদের মধ্যে ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণ কর্মসূচির উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে কৃষিমন্ত্রী এ কথা বলেন। বছরে পাঁচ মাস এই চাল পাবে ৫০ লাখ পরিবার। একেকটি পরিবার ৩০ কেজি করে চাল পাবে।

সরকারের উন্নয়ন কর্মসূচির সুবিধা সবাই ভোগ করছে জানিয়ে কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘কেবল ১০ টাকা কেজি চাল না, বিনা পয়সায় বইও দেয়া হচ্ছে। এটা কি কেবল আওয়ামী লীগের লোকেরা পায়? বিএনপি-জাতীয় পার্টির লোকেরাও পায় না? তিনি (প্রধানমন্ত্রী) সবাইকেই দিচ্ছেন। মা যেন সন্তানকে আলাদা করে দেখেন না, তেমনি শেখ হাসিনা সবাইকেই দেখেন। শেখের বেটি পার্টি দেখেন না, মানুষ দেখেন।’

২০০৪ সালের ২১ আগস্ট বঙ্গবন্ধু এভিনিউয়ে আওয়ামী লীগের জনসভায় গ্রেনেড হামলার কথা উল্লেখ করে কৃষিমন্ত্রী বলেন, ‘সেদিন আল্লাহ রহমতের চাদর দিয়ে বাঁচিয়েছেন হয়ত আপনাদের হাতে ১০ টাকা কেজি চাল তুলে দেয়ার জন্য।’

মতিয়া চৌধুরী বলেন, ‘বঙ্গবন্ধু আপনি কোথায় আছেন আমরা জানি না, কিন্তু আপনি দেখেন আপনার মেয়ে, আপনারই বাস্তবায়ন করছে। ক্ষুধা, দারিদ্র্যমুক্ত বাংলাদেশ গড়ছে, অনগ্রসরতা দূর করে বাংলার মানুষকে এগিয়ে নিচ্ছেন।’

বর্তমান সরকার দেশের উন্নয়নে কিছুই করছে না বলে বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার দেয়া বক্তব্যেরও সমালোচনা করেন কৃষিমন্ত্রী। বলেন, ‘১০ টাকায় আপনি চাল খাওয়াচ্ছেন না শেখের বেটি খাওয়াচ্ছে আপনি জবাব দেন। আপনি ইনকাম ট্যাক্সের হিসাব দেন না, টাকা মেরে দেন, এতিমের টাকা মেরে দেন, আর বড় বড় কথা বলেন।’

বিএনপি নেত্রীর বড় ছেলে তারেক রহমানকে নিয়েও কথা বলেন কৃষিমন্ত্রী। বলেন, ‘আপনার (খালেদা জিয়া) ছেলে বন্ড সই দিয়ে বিদেশে চলে যায়, কেন চলে গেল? সাহস থাকলে দেশে থাকতো, মানুষ তাকে জেল থেকে বের করতো।’

মতিয়া চৌধুরী বলেন, ‘যারা শেখ হাসিনাকে হত্যা করতে গিয়েছিল, সেই তারেক রহমানরা এখন বিদেশে আবর্জনা হয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে, এ দেশের মানুষ তাদের ঘৃণা করে।’






মন্তব্য চালু নেই