মেইন ম্যেনু

শেখ হাসিনার পদক্ষেপে সন্তুষ্ট ভারত

বাংলাদেশে সংখ্যালঘু হিন্দুদের ওপর হামলার ঘটনা মোকাবেলায় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নেতৃত্বাধীন ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ সরকারের পদক্ষেপের প্রশংসা করেছে ভারত। এছাড়া হামলা মোকাবেলায় সরকার যে পরিকল্পনা নিয়েছে তাতে ভারতের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে বলে জানিয়েছেন ভারতের পররাষ্ট্রমন্ত্রী সুষমা স্বরাজ। রোববার দিল্লিতে বার্ষিক সংবাদ সম্মেলনে মন্ত্রী এ তথ্য জানান।

সুষমা স্বরাজ বলেন, এটা স্বীকার করতেই হবে যে, শেখ হাসিনা সরকার এই হামলাকারীদের বিরুদ্ধে কঠোরতম পদক্ষেপ নিচ্ছে এবং ইতিমধ্যেই বাংলাদেশ জুড়ে তিন হাজারেরও বেশি সন্দেহভাজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়া প্রতিবেশী দেশে নির্যাতিত সংখ্যালঘুদের জন্য ভারতের দরজা সব সময়ই খোলা থাকবে।

সংবাদ সম্মেলনের অনেক অংশ জুড়েই ছিল বাংলাদেশ প্রসঙ্গ। সেখানে তিনি স্পষ্ট করে বলেন, বাংলাদেশে হিন্দুদের ওপর সাম্প্রতিক নানা হামলার ঘটনায় ভারত সরকার বিচলিত। কিন্তু বিবিসির এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী বলেন, এ হামলাগুলোকে তিনি বাংলাদেশে ক্ষমতাসীন সরকারের ব্যর্থতা হিসেবে দেখতে রাজি নন।

সুষমা স্বরাজ বলেন, এই হামলাগুলো যেমন দুর্ভাগ্যজনক, তেমনি ভারতের জন্য পীড়াদায়কও বটে। দুই দেশের সর্বোচ্চ স্তরে এ বিষয়ে নিয়মিত আমাদের কথাবার্তা হচ্ছে। তবে একটা কথা আমাকে অবশ্যই বলতে হবে, বাংলাদেশ সরকার এই হামলাকারীদের বিরুদ্ধে কঠোর ব্যবস্থা নিতে কোনও চেষ্টার ত্রুটি রাখছে না। তিন হাজারেরও বেশি লোককে এরই মধ্যে গ্রেফতার করা হয়েছে। শেখ হাসিনা সত্যিই খুব কঠোর পদক্ষেপ নিচ্ছেন।

সুষমা স্বরাজ আরো বলেন, তার জন্য এটা অত্যন্ত খুশির খবর যে বাংলাদেশের ইসলাম ধর্মীয় নেতারা রীতিমতো ফতোয়া দিয়ে এই ধরনের হামলাকে ইসলামবিরোধী বলে বর্ণনা করেছেন এবং লক্ষাধিক ধর্মীয় নেতা তাতে সইও করেছেন।

ফলে ভারত মনে করছে প্রকাশ্যে যখন এত হাজার হাজার ধর্মীয় নেতা হিন্দুদের ওপর হামলার বিরুদ্ধে সরব হতে পারেন, তখন বাংলাদেশের সরকার ও দেশের মানুষ অবশ্যই এই সব হামলার বিরুদ্ধে।

নয়াদিল্লির এই পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমরা নির্যাতিত সংখ্যালঘুদের কথা যখন বলছি, তার মধ্যে কিন্তু হিন্দু, শিখ, বৌদ্ধ, জৈন এরা সবাই পড়েন। নির্যাতিত সংখ্যালঘু বলতে আমরা শুধু হিন্দুদের কথাই বলছি না। ফলে ভারত যখন শরণার্থীদের জন্য নীতিমালা প্রস্তুত করছে, তখন কিন্তু সেটা আমাদের আশেপাশের প্রতিবেশী দেশ থেকে আসা নির্যাতিত সংখ্যালঘুদের কথা মাথায় রেখেই বানানো হচ্ছে।

আরো পড়ুন :

হিন্দুদের নিরাপত্তায় সন্তুষ্ট ভারত






মন্তব্য চালু নেই