মেইন ম্যেনু

শেষ গোসলের অপেক্ষায় সাকা-মুজাহিদ

ফাঁসির মঞ্চ থেকে একধাপ দূরে মানবতাবিরোধী অপরাধী সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ। আইনি প্রক্রিয়া শেষের সঙ্গে সঙ্গে বাকি প্রস্তুতিও ইতিমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে। তবে ফাঁসি কার্যকরের আগে নিয়ম অনুযায়ী তাদের করানো হবে শেষ গোসল। এরপরে তওবা পড়ানো আর স্বাস্থ্য পরীক্ষা। পরেই ফাঁসি কার্যকর।

কারাসূত্রে জানা গেছে,ইতিমধ্যে গোসল এবং তওবা পড়ানোর ব্যবস্থাও সম্পন্ন হয়েছে। এখন শুধু অপেক্ষা দুই আসামির প্রাণভিক্ষার আবেদনটি বঙ্গভবন থেকে রাষ্ট্রপতির মতামত নিয়ে কারাগারে পৌঁছানোর। প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ হয়ে গেলেই ফাঁসির কাষ্ঠে ঝুলতে হবে দুই মানবতাবিরোধী অপরাধীকে।

ইতিমধ্যে প্রাণভিক্ষাসংক্রান্ত আবেদন প্রথমে স্বরাষ্ট্র, পরে আইন মন্ত্রণালয় হয়ে এখন রাষ্ট্রপতির কাছে পাঠানো হয়েছে। পরে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে পরামর্শ করে রাষ্ট্রপতি এ বিষয়ে সিদ্ধান্ত দেবেন। তবে কোন প্রক্রিয়ায় তারা পরামর্শ করবেন তা জানা যায়নি।

আইন মন্ত্রণালয় সূত্রে জানা গেছে, রাত দশটার মধ্যে আবেদনটি কারাগারে পৌঁছার সম্ভাবনা রয়েছে।

কারা সূত্র জানিয়েছে, রাষ্ট্রপতির কাছ থেকে প্রাণভিক্ষার আবেদন নাকচ হয়ে কারাগারে পৌঁছামাত্র দুই আসামিকে গোসল করানো হবে। গোসল শেষে তারা দুই রাকাত নফল নামাজ আদায় করবেন। পরে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগার মসজিদের ইমাম তাদের তওবা পাঠ করাবেন। এরপর তাদের শেষ ইচ্ছানুযায়ী খাদ্য পরিবেশন করা হবে। পরে তাদেরকে ধীরে ধীরে ফাঁসির মঞ্চের দিকে নিয়ে যাওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, শনিবার বিকালে রাষ্ট্রপতির কাছে প্রাণভিক্ষার আবেদন করেন মানবতাবিরোধী অপরাধে মৃত্যুদন্ডপ্রাপ্ত বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য সালাউদ্দিন কাদের চৌধুরী ও জামায়াতের সেক্রেটারি জেনারেল আলী আহসান মোহাম্মদ মুজাহিদ। তবে দুই অপরাধীর পরিবারের পক্ষ থেকে আবেদনের কথা অস্বীকার করা হয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই