মেইন ম্যেনু

শোলাকিয়ায় নজিরবিহীন নিরাপত্তায় ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত

নজিরবিহীন নিরাপত্তার মধ্য দিয়ে দেশের সবচেয়ে বড় ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে কিশোরগঞ্জের ঐতিহাসিক শোলাকিয়া ঈদগাহ ময়দানে। মুষলধারে বৃষ্টির মধ্যেই এখানে ঈদের জামাত শুরু হয় সকাল ৯ টায়। জামাতে ইমামতি করেন মাওলানা ফরিদ উদ্দিন মানউদ।

সোমবার মাঝরাত থেকে এক টানা বৃষ্টি হচ্ছিল। ঈদের দিন সকাল থেকেই ছিল মুষলধারে বৃষ্টি। বৈরী আবহাওয়ার কারণে শোলাকিয়া মাঠে মুসল্লি সমাগত কম হলেও জামাত শুরু হয় নির্ধাতি সময়ে। জামাতে ইমামতি করেন বাংলাদেশ ইসলাহুল মুসলেমীন পরিষদের চেয়ারম্যান মাওলানা ফরিদ উদ্দীন মাসউদ। মুসল্লিদের উদ্দেশ্যে বয়ানও করেন তিনি।

গত ঈদুল ফিতরে শোলাকিয়ায় জঙ্গি হামলার পর এবার নিরাপত্তা নিয়ে বাড়তি সতর্কতা ছিল প্রশাসনের। ঈদকে ঘিরে নেয়া হয় তিন স্তরের নিরাপত্তা। মাঠের মূল ফটক ছাড়া বন্ধ করে দেয়া হয় অন্য সব প্রবেশ পথ। র্যাব-পুলিশের পাশাপাশি ছিল তিন প্লাটুন বিজিবি। বসানো হয়ে ক্লোজড সার্কিট ক্যামেরা। মেটাল ডিটেক্টরে দেহ তল্লাশির পর নির্ধারিত গেট দিয়ে ভেতরে প্রবেশ করতে দেয়া হয় মুসল্লিদের।

ঈদগাহ পরিচালনা কমিটির সভাপতি ও কিশোরগঞ্জের জেলা প্রশাসক মো. আজিমুদ্দিন বিশ্বাস জানান, বৈরী আবহাওয়ার কারণে মুসল্লি সমাগম কম হলেও কমতি ছিল না নিরাপত্তার। নেয়া হয় সব ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা।

উল্লেখ্য, কোনো এক ঈদের জামাতে শোলাকিয়ায় সোয়া লাখ মুসল্লি এক সঙ্গে নামাজ আদায় করেছিলেন। সেই থেকে এ মাঠের নাম হয় সোয়া লাখিয়া। যা এখন শোলাকিয়া হিসেবেই পরিচিত। প্রতি বছর এ ঈদগাহে ঈদের সময় দেশ-বিদেশের লাখো মুসল্লির ঢল নামে। তবে টানা বৃষ্টি আর কুরবানির আনুষ্ঠানিকতার কারণে এবার মুসল্লি সংখ্যা ছিল অনেক কম।






মন্তব্য চালু নেই