মেইন ম্যেনু

শ্রমিকদের আর বিমানবন্দরে হয়রানি করা হবে না

স্থানীয় সরকার পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী (এলজিআরডি) ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, এখন থেকে বিমানবন্দরে অভিবাসী শ্রমিকদের হয়রানি করা হবে না। আগামীতে যেসব শ্রমিক বিদেশ থেকে আসবে তাদেরকে যাতে বিমানবন্দরে কোনো রকম হয়রানি না করা হয় সে ব্যাপারে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা বিমানবন্দর কর্তৃপক্ষকে দেয়া হয়েছে।

আন্তর্জাতিক অভিবাসন দিবস উপলক্ষ্যে আজ শুক্রবার রাজধানীর বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে তিনি এ কথা বলেন।

মন্ত্রী বলেন, দেশের বিকাশমান অর্থনীতিতে অভিবাসী কর্মীরা অন্যতম সহায়ক শক্তি। অভিবাসন প্রক্রিয়ার মাধ্যমে একদিকে যেমন দেশের বেকারত্ব দূর করতে সাহায্য করছে অন্যদিকে কর্মীদের পাঠানো রেমিটেন্স দেশের অর্থনীতিকে সমৃদ্ধ করছে।

প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রী নূরুল ইসলাম বিএসসির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম, প্রবাসী কল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণায়লয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ুন, প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব খন্দকার ইফতেখার হায়দার, আইওএম বাংলাদেশ মিশনের প্রধান শরৎচন্দ্র দাস প্রমুখ।

খন্দকার মোশাররফ বলেন, অভিবাসন ব্যবস্থাকে স্বচ্ছ ও গতিশীল করতে বর্তমান সরকার বিভিন্ন বাস্তবধর্মী কর্মসূচি বাস্তবায়ন করছে। তিনি মর্যাদাপূর্ণ ও নিরাপদ অভিবাসন এবং কর্মীদের অধিকার ও কল্যাণ নিশ্চিত করতে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সঙ্গে কাজ করার আহ্বান জানান। বিদেশ থেকে ফেরত আসা কর্মীদের সামাজিক ও অর্থনৈতিক ভাবে পুন:একত্রিতকরণের লক্ষ্যে পদক্ষেপ গ্রহণের ওপর গুরুত্ব আরোপ করেন তিনি।

প্রবাসী কর্মীদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, যারা যে দেশে কর্মরত রয়েছেন সে দেশের আইন ও নিয়ম কানুন মেনে চলতে হবে। একইসঙ্গে তিনি বিমানবন্দরসহ সকল পর্যায়ে বিদেশগামী ও অভিবাসী কর্মীদের সহযোগিতা করতে কর্মকর্তাদের পরামর্শ দেন।

তিনি বলেন, বিশ্বের ১৬০টি দেশে ৯৬ লাখ বাংলাদেশি কর্মী কর্মরত রয়েছেন। এসব অভিবাসন কর্মীদের রেমিটেন্স, স্বাস্থ্য, সচেতনতা বৃদ্ধি, দক্ষতা উন্নয়নে সরকারের পাশাপাশি উন্নয়ন সহযোগী সংস্থাসহ সবাইকে এগিয়ে আসতে হবে।

সভাপতির বক্তৃতায় প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম বিএসসি বলেন, বাংলাদেশের আর্থ-সামাজিক পেক্ষাপটে অভিবাসন একটি গুরুত্বপূর্ণ বিষয়। দেশীয় প্রেক্ষাপটের পাশাপাশি আঞ্চলিক ও আন্তর্জাতিক পর্যায়ে এর গুরুত্ব অপরিসীম।

তিনি বলেন, অভিবাসন প্রক্রিয়াকে সহজ করতে মন্ত্রণায়লয় সর্বাত্মক চেষ্টা চালাচ্ছে। তিনি এ ব্যাপারে সকলের সহযোহিতা কামনা করেন।

অনুষ্ঠানে অভিবাসন প্রক্রিয়ায় বিশেষ অবদান রাখার জন্য বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্র্যাককে বিশেষ সম্মাননা দেয়া হয়। এছাড়া প্র্রবাসী কর্মীদের সন্তানদের মাঝে শিক্ষাবৃত্তি দেয়া হয়। পরে এলজিআরডি মন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খন্দকার মোশাররফ হোসেন এবং প্রবাসী কল্যাণ মন্ত্রী নূরুল ইসলাম বিএসসি আন্তর্জাতিক অভিবাসন দিবস উপলক্ষে আয়োজিত মেলায় বিভিন্ন স্টল পরিদর্শন করেন।






মন্তব্য চালু নেই