মেইন ম্যেনু

শ্লীলতাহানির অভিযোগে গণধোলাই খেয়ে ইউপি সদস্য হাসপাতালে

ডলার কিনতে গিয়ে খোয়া যাওয়া টাকা ফিল্মি ষ্টাইলে উদ্ধার করতে গিয়ে গণ ধোলাই খেয়ে গুরুতর আহত হয়ে রংপুর জেলার তারাগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন আছেন ইউপি সদস্য মিলন। তারাগঞ্জ উপজেলার কুর্শা ইউনিয়ন পরিষদের ২নং ওয়ার্ড সদস্য ও আওয়ামীলীগ নেতা কামরুজ্জামান মিলন(৪২) বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টায় কিশোরগঞ্জ উপজেলার চাঁদখানা ইউনিয়নের বগুলাগাড়ী কামারপাড়া গ্রামে এ ঘটনাটি ঘটেছে।

সরেজমিনে গিয়ে জানা গেছে,উপজেলার চাঁদখানা ইউনিয়নের বগুলাগাড়ী কামাড়পাড়া গ্রামে গত এক সপ্তাহ আগে টাঙ্গাইল জেলার কাপড় ব্যবসায়ী ফেরি করার নামে বগুলাগাড়ী কামারপাড়ার বিধান চন্দ্রের বাড়ীতে ডলার কিনতে গিয়ে বেশ কিছু টাকা খোয়া যায়।

পরে বিষয়টি তারাগঞ্জ উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড সদস্য ও ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান মিলনকে জানালে বিষয়টিকে নিয়ে কয়েকদিন থেকে দফায় দফায় ওই এলাকায় খোয়া যাওয়া টাকা উদ্ধারের জন্য চেষ্ঠা চালায়।

এর মধ্যে গত বৃহস্পতিবার বিকালে ৪টি মোটর সাইকেলে করে টাঙ্গাইলের দু’জনসহ কয়েকজন ভাড়া করা কিছু লোক নিয়ে এসে কামারপাড়া পরশুরামের ছেলে বিধানের বাড়ীতে গিয়ে পূর্ব দুয়ারী একটি টিনের দরজা এবং বেড়া ভেঙ্গে ঘরের মধ্যে প্রবেশ করে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করে টেনে হিঁচড়ে বিধানের স্ত্রী শিল্পী রাণীকে (৩৫) জোর পূর্বক তাঁদের মোটর সাইকেলে তোলার চেষ্ঠা করলে শিল্পী রাণীর শরীরের কাপড় খুলে নেওয়ার চেষ্ঠা করলে তার চিৎকারে এলাকার লোকজন এসে বাঁধা দেয়।

এতে তাদের সাথে বাক বিতন্ডার এক পর্যায়ে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের রূপ নেয় এবং ৪জন আহত হয়। আহতরা হলেন, হাফেজুল ইসলাম ওরফে ডলার হাফে(৪০)কিবরিয়া (৩৩)ফরিজুল ইসলাম(৪৩)ও তারাগঞ্জ উপজেলার কুর্শা ইউনিয়নের ২ নম্বর ওয়ার্ড মেম্বার ও ওই ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক কামরুজ্জামান ওরফে ছোড়া মিলন(৪২) এদের মধ্যে ছোড়া মিলনের অবস্থা গুরতর বলে হাসপাতাল সুত্রে জানা গেছে। সংঘর্ষের সময় লাঠি নিতে গেলে বিষু চন্দ্র (৪০)ও বিনোদ চন্দ্র (৩২) এর ঘরের বেড়া ভাংচুর ও আসবাপত্র তছনছ করে তারা।

পরে এলাকাবাসীর গণ ধোলাই খেয়ে মিলনসহ তার সঙ্গীরা সেখান থেকে পালিয়ে যায়। বিধানের স্ত্রী “শিল্পী রাণী জানান গত কয়েকদিন থেকে মিলন মেম্বার আমার বাড়ীতে এসে ডলারের টাকার ভাগ চেয়ে বসেন,টাকার ভাগ না পেয়ে কয়েকদিন ফেরত যান।

(বৃহস্পতিবার ২৯-১০-২০১৫ইং) বিকালে মিলন কয়েকজন লোককে সাথে নিয়ে ৪টি মোটর সাইকেল নিয়ে আমার বাড়ীর সামনে এস দাড়ায় এবং আমার স্বামীকে ডাকে আমার স্বামী বাড়ীতে না থাকায় তারা আমার সাথে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেতে থাকে এবং আমার ঘরের বেড়া ও দরজা ভেঙ্গে আমার ঘরে ঢুকে আমাকে নিয়ে টেনে হিঁচড়ে আমাকে তাদের মোটর সাইকেলে তোলার চেষ্ঠা করে এবং আমার শ্লীলতাহানির চেষ্ঠা চালায়”।

এ ব্যাপারে চাঁদখানা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আইয়ুব আলী জানান,কামরুজ্জামান মিলন ফিল্মি ষ্টাইলে মোটর সাইকেলের বহরে ভাড়া করা বাহিনী নিয়ে এসে কামাড় পাড়ায় বিধান চন্দ্রর (সংখ্যালঘু) বাড়ীতে হামলা চালায় এবং তাদের বাড়ীঘরের বেড়া,দরজাসহ আসবাব পত্র তছনছ করে বিধানের স্ত্রী শিল্পী রাণীর শ্লীলতাহানির চেষ্ঠা চালায়। তাদের ব্যাপারে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

এ ব্যাপারে কিশোরগঞ্জ থানা অফিসার ইনচার্জ মোস্তাফিজার রহমান’র সাথে কথা হলে তিনি জানান, আমার কাছে অভিযোগ আসলে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে কয়েকদফা মিলনের মুঠো ফোনে চেষ্ঠা করে তার ফোন বন্ধ থাকায় তার বক্তব্য জানা যায়নি।






মন্তব্য চালু নেই