মেইন ম্যেনু

‘সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিল হলে দাবানল জ্বলে উঠবে’

সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিল করার চেষ্টা করা হলে সারাদেশে প্রতিরোধের দাবানল জ্বলবে বলে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করেছে হেফাজত নেতৃবৃন্দ। শনিবার গণমাধ্যমে পাঠানো এক বিবৃতিতে সংগঠনটি সরকারের প্রতি এ হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করে।

বিবৃতিতে হেফাজত নেতৃবৃন্দ বলেন, রাষ্ট্রের স্বাধীনতা-সার্বভৌমত্ব, সংখ্যা-গরিষ্ঠ জনগণের চেতনা, ধর্মীয় মূল্যবোধ, সামাজিক স্থিতিশীলতা ও বিরাজমান সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির ব্যাপারে দায়িত্ব জ্ঞানহীন, গণবিচ্ছিন্ন একটি অশুভ চক্র সবসময় স্বার্থ হাসিলের লক্ষ্যে এদেশে নৈরাজ্য সৃষ্টি ও অশান্তির বীজ বপন করতে চায়।

তারা যখনই সুযোগ পেয়েছে ইসলাম ও মুসলমানদের বুকে ছোবল মারার চেষ্টা করেছে। সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাতিল করার জন্য এই অশুভ চক্রটি দীর্ঘদিন ধরে সক্রিয়। অনুকূল পরিবেশ পেলেই এরা ফনা তুলে। বিষধর সাপতুল্য এই চক্রটি ঝোপ বুঝে কোপ মারার জন্য মাঝে মাঝে সরকার এবং বিচার বিভাগের ঘাড়ে সওয়ার হতে চায়।

তারা বলেন, ৯২ শতাংশেরও বেশি মুসলমান অধ্যুষিত বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহৎ মুসলিম দেশের সংবিধান থেকে ইসলামের নাম-নিশানা মুছে দিয়ে এরা এক ঢিলে দুই পাখি মারার পাঁয়তারা করছে। তারা একদিকে সামারাজ্যবাদী মোড়ল প্রভুদের খুশি করতে চায়, অন্যদিকে সারাদেশে সাম্প্রদায়িক দাঙ্গা সৃষ্টির চক্রান্ত বাস্তবায়নে আদাজল খেয়ে নেমেছে। এরূপ কোনো ষড়যন্ত্র হলে এবং সরকার কিংবা বিচারবিভাগ তাদের কাছে মাথা নত করলে সর্বস্তরের মুসলমান রাজপথে নেমে আসবে। গোটা দেশে প্রতিরোধের দাবানল জ্বলে উঠবে।

হেফাজত নেতৃবৃন্দ বলেন, আমরা স্পষ্ট ভাষায় বলছি, সংবিধান থেকে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম বাদ দেবার আবেদন করে হাইকোর্টে দায়ের করা রিটটি সংশ্লিষ্ঠদের অবিলম্বে প্রত্যাহার করতে হবে। মহামান্য আদালতের প্রতি আমাদের আবেদন থাকবে, জনস্বার্থ, সংখ্যাগরিষ্ঠ জনগণের ধর্মীয় চেতনা, সর্বোপরি সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতি বজায় রাখার স্বার্থে এ ধরনের বিতর্কিত বিষয়ে দায়েরকৃত রিট খারিজ করে দেয়া হোক। রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম এটি আদৌ কোনো রাজনীতির বিষয় নয়।

বিবৃতিদাতারা হলেন, হেফাজতে ইসলামের সিনিয়র নায়েবে আমির আল্লামা মুহিব্বুল্লাহ বাবুনগরী ও নায়েবে আমির মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী।






মন্তব্য চালু নেই