মেইন ম্যেনু

সংসদের অধিবেশন শুরু, চলবে ৫ মে পর্যন্ত

দশম জাতীয় সংসদের দশম অধিবেশন শুরু হয়েছে। আজ রবিবার বিকাল ৫টা ২ মিনিটে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর সভাপতিত্বে দিনের কার্যসূচি শুরু হয়। এ অধিবেশন চলবে আগামী ৫ মে পর্যন্ত।

শুরুতেই দশম অধিবেশনের জন্য প্যানেল সভাপতি মনোনয়ন দেন স্পিকার। এরপর নবম অধিবেশন থেকে দশম অধিবেশনের আগ পর্যন্ত মৃত সংসদ সদস্য ও বিশিষ্টজনের নামে শোক প্রস্তাব পাঠ করা হয়।

এরপর রয়েছে মন্ত্রীদের জন্য নির্ধারিত প্রশ্নোত্তর পর্ব। এর আগে বিকাল ৪টায় দশম জাতীয় সংসদের কার্যউপদেষ্টা কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়।

রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সংবিধানের ৭২ অনুচ্ছেদের (১) দফায় প্রদত্ত ক্ষমতাবলে গত ৩০ মার্চ এ অধিবেশন আহ্বান করেন। সাংবিধানিক বাধ্যবাধকতা অনুযায়ী এক অধিবেশন সমাপ্ত হওয়ার ৬০ দিনের মধ্যে আরেকটি অধিবেশন বসতে হবে। এ জন্যই এ অধিবেশন ডাকা হয়েছে।

সংসদ সচিবালয় থেকে জানানো হয়, সংসদের দশম অধিবেশন সংক্ষিপ্ত হলেও বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিল উত্থাপন ও পাস হতে পারে।

সংসদের আইন শাখা থেকে জানানো হয়, দশম অধিবেশনের জন্য নতুন ৬টি বিল জমা পড়েছে। এছাড়া পুরানো বিল রয়েছে ২০টা। অধিবেশন চলাকালে আরো কয়েকটি নতুন বিল আইন শাখায় জমা হতে পারে। এছাড়া সংসদ কার্যপ্রণালী বিধির বিভিন্ন ধারায় সমকালীন গুরুত্বপূর্ণ ইস্যু নিয়ে আনীত নোটিশের ওপর আলোচনা হতে পারে।

এর আগে গত ২৯ ফেব্রুয়ারি দশম জাতীয় সংসদের নবম অধিবেশন শেষ হয়। গত ২০ জানুয়ারি ওই অধিবেশন শুরুর দিন বছরের প্রথম অধিবেশন হিসাবে সংবিধান অনুযায়ী রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ সংসদে ভাষণ দেন। মোট ২৭ কার্যদিবসের নবম অধিবেশনে ৯টি সরকারি বিল পাস হয়। এছাড়া ওই অধিবেশনে আইন প্রণয়ন সম্পর্কিত কাজ সম্পাদনের পাশাপাশি কার্যপ্রণালী বিধির ৭১ বিধিতে ২৮৫টি নোটিশের মধ্যে ১৫টি নোটিশ গৃহীত হয় এবং গৃহীত নোটিশের মধ্যে তিনটি সংসদে আলোচিত হয়। ৭১(ক) বিধিতে দুই মিনিটের আলোচিত নোটিশের সংখ্যা ছিল ৬০টি।

এছাড়া নবম অধিবেশনে প্রধানমন্ত্রীর উত্তরদানের জন্য সর্বমোট ৩শ’টি প্রশ্ন পাওয়া যায়। এর মধ্যে তিনি ৮৯টি প্রশ্নের উত্তর দেন। মন্ত্রীদের উত্তরদানের জন্য চার হাজার ৯২২টি প্রশ্ন পাওয়া যায়। তার মধ্যে তিন হাজার ৪৪৪টির উত্তর দেয়া হয়।






মন্তব্য চালু নেই