মেইন ম্যেনু

সংসদে কোরাম সংকটে অপচয় ৩২ কোটি টাকা

দশম জাতীয় সংসদ অধিবেশনে কোরাম সংকটের ফলে ৩২ কোটি ৪২ লাখ ৩১ হাজার টাকার অপচয় হয়েছে বলে জানিয়েছে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল (টিআইবি)।

আজ রবিবার সকালে রাজধানীর টিআইবি কার্যালয়ে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সংস্থাটির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান।

টিআইবির উপ-নির্বাহী পরিচালক ড. সুমাইয়া খায়ের, পরিচালক মোহাম্মদ রফিকুল হাসান, রিসার্চ অ্যান্ড পলিসি বিভাগের ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার ফাতেমা আফরোজ, মোরশেদ আক্তার, প্রোগ্রাম ম্যানেজার জুলিয়েট রোজেটি সংবাদ সম্মেলনে উপস্থিত ছিলেন।

সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, দশম সংসদের দ্বিতীয় থেকে ষষ্ঠ অধিবেশনের (৫টি অধিবেশন) ১১২ কার্যদিবসে সময় ব্যয় হয়েছে ৩৮৮ ঘণ্টা ৩৫ মিনিট। প্রতি কার্যদিবসে গড়ে বৈঠক হয়েছে তিন ঘণ্টা ২৮ মিনিট। ৫টি অধিবেশনে মোট কোরাম সংকট ছিল প্রতি কার্যদিবসে গড়ে ২৬ মিনিট। যার অর্থমূল্য প্রায় ২৮ লাখ ৮৬ হাজার টাকা।

টিআইবি জানায়, মোট কোরাম সংকট হয় ৪৮ ঘণ্টা ৪১ মিনিট। অর্থাৎ ৫টি অধিবেশনে কোরাম সংকটে ৩২ কোটি ৪২ লাখ ৩১ হাজার টাকার অপচয় হয়েছে।

ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, সার্বিকভাবে সংসদের কার্যক্রমে আমরা হাতাশ। সংসদে সরকারি ও বিরোধী দলের উপস্থিতি গ্রহণযোগ্য নয়। সংসদীয় আচরণ থেকে ব্যাপক বিচ্যুতি হয়েছে। একটি দল বা জোট যাদের সংসদে উপস্থিত নেই, তাদের নিয়ে ব্যাপক আলোচনা হয়েছে। প্রতিপক্ষের সমালোচনা আগের সংসদের চেয়ে ১২ গুণ বেড়েছে।

তিনি বলেন, সংসদীয় কমিটির মূল দায়িত্ব পালনের প্রতি অনীহা ও সংসদ সদস্যদের অবহেলা বিশেষভাবে লক্ষণীয়। নবম সংসদে বিরোধী দলের উপস্থিতির হার ৪ শতাংশ। এবার বিরোধী দলের উপস্থিতি ৫৩ শতাংশ। সেদিক থেকে সংসদে বিরোধী দলের অংশগ্রহণ বেড়েছে। তবে বিরোধী দল কতটুকু বিরোধী তা নিয়ে যথেষ্ট প্রশ্ন রয়েছে।






মন্তব্য চালু নেই