মেইন ম্যেনু

সংসদ ভবনের পাশেই গাছে গলায় দড়ি!

সংসদ ভবনের কাছেই একটি গাছ থেকে উদ্ধার হল ঝুলন্ত মৃতদেহ। নয়াদিল্লির এই ভিভিআইপি এলাকায় সাতসকালে গাছ থেকে মৃতদেহ ঝুলতে দেখা যাওয়ায় চাঞ্চল্য ছড়িয়েছে। গলায় দড়ি দিয়ে ওই ব্যক্তি আত্মহত্যা করেছেন বলেই পুলিশের প্রাথমিক অনুমান।

কিন্তু বিজয় চকের মতো কড়া নিরাপত্তার বেষ্টনীতে থাকা এলাকায় এই ভাবে গলায় দড়ি দেওয়া সম্ভব হল কী ভাবে, তা নিয়েই প্রশ্ন উঠে গিয়েছে। খবর-আনন্দবাজার।

সংসদ ভবন এবং বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রকের সদর দফতর রয়েছে বিজয় চক সংলগ্ন এলাকায়। রাষ্ট্রপতি ভবনও সেখানেই। সংসদ ভবনের খুব কাছেই মিডিয়ার জন্য যে পার্কিং লট রয়েছে, সেখানকার একটি গাছ থেকেই ঝুলন্ত মৃতদেহটি উদ্ধার হয়েছে। মৃতের পরনে ছিল নীল শার্ট ও কালচে জিনস। পায়ে স্নিকার্স। মৃতদেহের কাছ থেকে একটি ব্যাগ এবং একটি ২৩ পাতার সুইসাইড নোট পাওয়া গিয়েছে। সুইসাইড নোট থেকে জানা গিয়েছে মধ্যপ্রদেশের শিবপুরের বাসিন্দা ছিলেন রামদয়াল ভার্মা নামে ওই ব্যক্তি। ক্রিকেট বেটিং-এর সঙ্গে যুক্ত ছিলেন তিনি। বিপুল অঙ্কের দেনায় ডুবে গিয়েই আত্মহত্যার পথ বেছে নিয়েছেন ওই ব্যক্তি। মৃতের চার সন্তান রয়েছে বলেও সুইসাইড নোট থেকেই জানা গিয়েছে।

পুলিশ সূত্রের খবর, বুধবারই মধ্যপ্রদেশ থেকে দিল্লি পৌঁছেছিলেন রামদয়াল। রাতে সংসদের ভবনের কাছে গিয়ে গলায় দড়ি দেন। সকাল ৭টা নাগাদ তাঁর দেহ প্রথম দেখতে পান নিরাপত্তা কর্মীরা। কিন্তু কড়া নিরাপত্তার মধ্যে সংসদ ভবনের কাছে গাছ থেকে গলায় দড়ি দিয়ে ঝুলে পড়া সম্ভব হল কী করে, প্রশ্ন উঠে গিয়েছে তা নিয়েই।






মন্তব্য চালু নেই