মেইন ম্যেনু

সঙ্গীকে খুশি করতে যে ছোট্ট ৭ টি মিথ্যা বলেন প্রায় সকলেই

যাকে আমরা ভালোবাসি তাকে কতো কথা বলেই না খুশি রাখতে চাই আমরা। যদি মানুষ বলে থাকেন, ‘মিথ্যা বলে খুশি করার চাইতে, সত্য বলে বেজার করাও ভালো’ কথাটি বইয়ের পাতাতেই ভালো লাগে। বাস্তব জীবনে এই কথাটি খাটে না। অভিনয় নয়, সামান্য ছোট্ট কিছু মিথ্যে বলে যদি সঙ্গীর মুখে হাসি দেখা যায় তাহলে তা নিজেই দিন পার করে দেয়া সম্ভব। আর একারণেই অনেকে সঙ্গীকে খুশি করার জন্য নানান ধরণের মিথ্যে বলেন। অল্প হলেও তো সঙ্গীর মুখের হাসি দেখা যাবে। আর কিছু উপকারী মিথ্যা বলাটা খুব বেশি পাপের কিছু নয়, তাই নয় কি?

১) ‘তোমার বাবা মাকে আমি আমার বাবা মায়ের মতোই মনে করি’ এই কথাটি মিথ্যে হলেও নিরীহ। শত চেষ্টা করলেও শ্বশুর শাশুড়িকে কেউই নিজের বাবা মায়ের মতো করে ভাবতে পারেন না।

২) ‘তোমার পছন্দ আমার অনেক ভালো লাগে, তোমার গিফটগুলো সত্যিই অনেক সুন্দর’। সঙ্গীকে তো মুখ ফুটে বলাই যায় না তার পছন্দ একেবারেই খারাপ কারণ তার পছন্দের মধ্যে তিনিও পড়েন, তাই এই মিথ্যের আশ্রয় নেয়া।

৩) পাশ দিয়ে কোনো সুন্দরী নারী বা সুদর্শন পুরুষ হেঁটে গেলে নজর যাবেই, যদিও পুরুষেরা এই কাজ বেশি করে থাকেন, তবে নারীরাও যে করেন না তা মিথ্যে। আর এই সময় সঙ্গীর মন রক্ষার্থে মিথ্যা বলতেই হয় ‘আমি সত্যিই তাকে দেখছিলাম না’।

৪) ‘তোমার এই পোশাকটি সত্যিই অনেক বেশি সুন্দর, তোমাকে দেখতেও দারুণ লাগে’ মূলত নারী পুরুষ উভয়েরই বলা এই কথাটি পুরোপুরি মিথ্যা থাকে। অনেকে তো সেই পোশাকের কথাই বেশি করে বলেন যেটাতে সঙ্গীকে খুবই বাজে দেখা যায়।

৫) ‘আমাকে কি মোটা দেখাচ্ছে’ বা ‘আমি কি আগের চাইতে শুকিয়েছি’ এই ধরণের প্রশ্নের উত্তরে নারী পুরুষ উভয়েই মিথ্যে বলে থাকে। এবং এই প্রশ্নের সম্মুখীন মূলত পুরুষেরাই বেশি হন।

৬) ‘তোমার বন্ধুবান্ধবের মধ্যে তুমিই সবচাইতে সুন্দর/হ্যান্ডসাম’, এই কথাটিও পুরোপুরি মিথ্যা। শুধুই সঙ্গীকে খুশি রাখার নিরীহ কৌশল মাত্র।

৭) ‘আমার পরিচিত সকল নারী/পুরুষের মধ্যে তুমিই সবচাইতে আলাদা’। এই কথাটি সকলেই প্রশংসা হিসেবে নিয়ে থাকেন যদিও কথাটি পুরোটাই মিথ্যে থাকে, কারণ সঙ্গীকে খুশি করার এর চাইতে বড় কোন অস্ত্র নেই।
সূত্রঃ bollywoodshaadis






মন্তব্য চালু নেই