মেইন ম্যেনু

সঙ্গীর সঙ্গে যে সব বিষয়ে নারীদের লুকোচুরি

নারীদের জীবনটা নাকি রহস্যের সমার্থক। কারো সঙ্গে সম্পর্কে জড়িয়ে পড়লেও এমন বহু বিষয় রয়েছে যা তারা সব সময় লুকিয়ে রাখতে চান। যদিও দুজনের জীবন একসঙ্গে জড়িয়ে গেলে অনেক সত্যই উন্মোচিত করতে হয়। তবুও কয়েকটি জিনিস সঙ্গীর কাছে থেকে লুকিয়ে রাখতে মরিয়া তারা। সোশাল মিডিয়া ‘আস্ক ওমেন’-এ নারীদের প্রতি একটি প্রশ্ন ছুঁড়ে দেওয়া হয়। তা হলো, প্রেমিকের কাছ থেকে কি লুকাতে চান আপনারা? বিভিন্ন বিষয় উঠে আসলেও গুটিকয়েক তথ্য পুরোপুরি মিলে যায় সব নারীর। দেখে নিন, সঙ্গীর কাছ থেকে কি কি লুকাতে মরিয়া থাকেন নারীরা।

১. অন্তরঙ্গ সময়ের ইচ্ছা : প্রেমিক বা স্বামীর সঙ্গে দারুণ অন্তরঙ্গ কিছু সময় কাটে। আর সময়টি কিভাবে উপভোগ করতে চান, তা রহস্যঘেরাই রাখতে চান নারীরা। কিন্তু ছেলেদের মনের ইচ্ছাটা যেমন স্পষ্ট থাকে, তেমনি নারীদেরও যার যার পছন্দের চাহিদা থাকে। কিন্তু তা অন্তরালে রাখেন নারীরা।

২. নারীদের আড্ডায় কথোপকথন : এ বিষয়টি অনেক পুরুষই জানতে চান। কিন্তু কখনই এ রহস্যের উন্মোচন ঘটেনি। নারীরা তাদের একান্ত আড্ডায় কি কথা বলেন তা কখনো সঙ্গীকে জানাতে চান না। বান্ধবীদের কাছে হয়তো মেয়েরা তার গোপন মনের ইচ্ছা বা অন্য কোনো বিষয় তুলে ধরেন, কিন্তু সঙ্গীর কাছে নয়। মেয়েরা নিজেদের মধ্যে কি নিয়ে কথা বলেন তা সযত্নে এড়িয়ে চলেন পুরুষদের কাছ থেকে।

৩. মেকআপ কিটস : সঙ্গিনীর সঙ্গে সারাদিন ঘোরার পরও দেখবেন, তিনি হয়তো মেয়েদের ওয়েটিং বা ওয়াশ রুমে একবার ঢুঁ দিলেন এবং আগের মুহূর্তেই সতেজ ও উজ্জ্বল হয়ে বেরিয়ে এলেন। এ সবই তার মেকআপ কিটের জাদু। আর এই বাক্সটি তিনি কিভাবে কোথায় রাখেন, তা কখনো আপনাকে জানতে দেবেন না। আবার অ্যান্টি এজিং ক্রিম বা তার সৌন্দর্যের বিশেষ কোনো প্রসাধন আপনার কাছ থেকে পুরোপুরি লুকিয়ে রাখতে চাইবেন।

৪. সাবেক নিয়ে অনুভূতি : তার যদি আগে কারো সঙ্গে সম্পর্ক থাকে, তবে তার কথা কখনোই তুলবে না। আর বর্তমানে তাকে নিয়ে কি ভাবনা আসছে তা জানা তো অসম্ভব। বর্তমান প্রেমিকের কাছ থেকে সব সময় অতি সাবধানে সাবেক প্রেমিককে নিয়ে যাবতীয় অনুভূতি লুকিয়ে রাখেন মেয়েরা। নারীর মনের গভীর থেকে গভীরতম চিন্তা-ভাবনাও প্রেমিকের সামনে উন্মোচন করতে চান না তারা। তবে যতটুকু না বললেই নয় ততটুকু তারা বলেন। কিন্তু এর বাইরে ‘টুঁ’ শব্দটি নয়।

৫. সঙ্গীর স্বজনদের প্রতি অনুভূতি : মেয়েরা সব সময় স্বামীর বা সঙ্গীর বোনের ও মায়ের প্রতি অতি নিরুৎসাহী থাকেন। আসলে এর মাধ্যমে তারা ছেলের প্রতি এক ধরনের চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দেন। সঙ্গীর পরিবারে নিজের অবস্থান ও মানসিকতা প্রকাশ করে দেন। শ্বশুর বাড়ির মানুষদের প্রতি মনের আসল কথা তারা কথনোই প্রকাশ করেন না।
সূত্র : টাইমস অব ইন্ডিয়া






মন্তব্য চালু নেই