মেইন ম্যেনু

সজল-মিমের ‘ফেরারী একদিন’

তৃতীয় বারের মত বি এ পরীক্ষায় ফেল করলে প্রেমিকা কুমকুম রবিনকে জানায়, পালিয়ে বিয়ে করা ছাড়া তাদের আর কোন উপায় নেই। বি এ ফেল ছেলের সাথে তার মামা তাকে বিয়ে দেবেনা। গ্রামের ফ্যাশনেবল যুবক রবিন আর মাতবরের ভাগ্নি কুমকুম ঠিক করে কাল খুব ভোরে তারা নদীর ঘাট থেকে নৌকা করে পালিয়ে যাবে।

সেইমত পরদিন রবিন তৈরি হয়ে ঘাটে আসলেও কুমকুম আসে না। রবিন বুঝতে পারে শেষ মূহূর্তে কুমকুম সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করেছে। রবিন হতাশ হয়ে ফিরে যাবার সময় শোনে গতরাতে কুমকুম খুন হয়েছে এবং পুলিশ আসছে রবিনকে ধরার জন্য। রবিন দৌঁড়ে বাসায় যায়। গিয়ে দেখে সব খবর পেয়ে রবিনের মা কান্নাকাটি করছে। পুলিশ রবিনের বাসায় চলে আসে। পথ দেখিয়ে নিয়ে আসে মাতবরের কর্মচারী বল্টু। রবিন পালায়।

পুলিশ দৌড়েও ধরতে পারেনা। রবিনকে না পেয়ে রবিনের মাকে জেরায় বিপর্যস্ত করে তোলে পুলিশ। রবিন মাস্টার চাচার কাছে গিয়ে জানতে পারে – কুমকুমের মামার অভিযোগ-গতরাতে রবিন তার বন্ধুদের নিয়ে মাতবরের বাড়ীতে গিয়ে কুমকুমকে তুলে আনতে চেয়েছিল, কুমকুম বাঁধা দেওয়াতে রবিন কুমকুমকে খুন করে এবং মাতবরকেও আহত করে। রবিন দিশেহারা হয়ে পড়ে।

পুলিশ গ্রামের সব জায়গায় রবিনকে খুঁজতে থাকে। রবিন কোন উপায় না দেখে গ্রামের একটি পুরাতন ভগ্নপ্রায় ভৌতিক বাড়ীতে আশ্রয় নেয়। সেখানে এসে রবিন দেখে অপ্রত্যাশিত কিছু। গল্পের মোড় পুরো ঘুড়ে যায়। শুরু হয় নতুন গল্প। নতুন এক খেলা। এই খেলায় রবিন খুঁজতে থাকে পুলিশদের। এমন এক গল্পে নির্মিত নাটকের নাম ‘ফেরারী একদিন’।

নাটকটি রচনা করেছেন ফজলুল হক আকাশ এবং পরিচালনা করেছেন দীপংকর দীপন। এতে অভিনয় করেছেন, আব্দুন নূর সজল, বিদ্যা সীনহা মীম, গাজী রাকায়েত, আমিরুল হক চৌধুরী, শিরীন আলম, সঞ্জীব, মাহমুদুল ইসলাম সেলিম প্রমুখ। ওয়ালটন ড্রামা হিসেবে নাটকটি পহেলা এপ্রিল রাত ৯টা ৩০ মিনিটি প্রচার হবে শুধুমাত্র চ্যানেল নাইন-এ।






মন্তব্য চালু নেই