মেইন ম্যেনু

সত্যিকারেই সেক্স করতে হয়েছে যে সকল সিনেমায়!

এখন বাজারে সিনেমার চাহিদা বাড়াতে গেলে তার মধ্যে সেক্স ঢোকাতেই হবে। সেক্স না হলেও যৌন উদ্দীপনা মূলক কোনও না কোনও সিন দেখানো হয় বেশিরভাগ ছবিতেই। তবে যতই সেক্স দেখানো হোক না কেন, পুরোটাই তৈরি করা হয়ে থাকে। বাস্তবে কেউই প্রকাশ্যে সেক্স করেন না। শুধুমাত্র ছবির প্রচার এবং সেক্সের অনুভূতি দেওয়ার জন্যই এই সিন ঢোকানো থাকে। তবে এবার দেখে নিন এমন ১০টা সিনেমা যেখানে ক্যামেরার সামনেই বাস্তবেই সেক্স করা হয়েছিল…

১. 9 Songs
এটি একটি ব্রিটিশ আর্ট রোম্যান্টিক ড্রামা ছবি। ২০০৪ সালে মুক্তি পায় এই ছবি। ছবির পরিচালনা করেন মাইকেল উইন্টারবটম। সিনেমাতে মোট ৮টা ভিন্ন ব্যান্ডকে গান গাইতে দেওয়া হয়েছিল। তা থেকেই ছবির নামকরণ করা হয়।

২. Love
এটা একটা ফরাসি ছবি। ছবির পরিচালনা করেছিলেন গ্যাসপার নুই। ২০১৫ সালে কান ফিল্ম ফেসটিভ্যালেও দেখানো হয় ছবিটিকে। প্রধানত ভালবাসা ঠিক কি তাই ফুটিয়ে তোলা হয়েছে সিনেমাতে।

৩. Anatomy of Hell
অপর একটি ফরাসি সিনেমা হল অ্যানাটমি অফ হেল। ক্যাথলিন ব্রেইলাট এই ছবির পরিচালনা করেন। একজন একাকী মহিলার যৌন জীবনই হল এই ছবির মূল বিষয়।

৪. In The Realm Of Senses
এটি একটি জাপানি এবং ফরাসি আর্ট ফিল্ম। পরিচালনা করেন নাগিসা ওসিমা। বাস্তব সেক্স এবং নৃশংশতার ছবি ফুটিয়ে তোলা হয়েছে ছবিতে।

৫. Pola X
এই ফরাসি ছবি তৈরি করা হয়েছিল হারমান মেলভিলি নামে একজন ঊপন্যাসিকের উপন্যাস অবলম্বনে।

৬. Shortbus
আমেরিকান এই ছবি হাস্যরসে ভরা। যেখানে সেক্সকেও গুরুত্ব দেওয়া হয়েছে। মূতল নিউ ইয়র্ক সিটিকেই উদ্দেশ্য করা হয়েছে ছবির মধ্যে।

৭. Love Actually…Sucks!
২০১১ সালে মুক্তি পায় এই ছবি। পরিচালনা করেন স্কুড। ছবির মধ্যে ভালবাসার জাবতীয় সমস্যাগুলোকেই তুলে ধরা হয়েছে।

৮. Scarlet Diva
একজন ইতালিয় অভিনেত্রীর আধা-আত্মজীবনী মূলক সিনেমা। পরিচালনা করেন আসিয়া আর্জেন্তো। অভিনেত্রীর জীবনের ওঠাপড়া, সেক্স, সম্পর্ক এবং নেশা করা সব কিছুই তুলে ধরা হয়েছে।

৯. Through The Loking Glass
১৯৭৬ সালে মুক্তি পায় ছবিটি। পরিচালক ছিলেন জোন্স মিডিলটোন। একটা আয়নাকে কেন্দ্র করে তৈরি করা হয় এই ছবি।

১০. Sweet Movie
হাস্যরসে পূর্ণ এই ছবির মধ্যে যৌনতায় ভরা। মুক্তি পায় ১৯৭৪ সালে। বাস্তব সেক্স ছবির মূল আকর্ষণ।

তথ্য সুত্র- অনলাইন



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই