মেইন ম্যেনু

সদরঘাটে বিশেষ স্টিমার সার্ভিস শুরু

পবিত্র ঈদুল ফিতর উপলক্ষে বুধবার সকাল থেকে দেশের সর্ববৃহৎ নদীবন্দর সদরঘাটে বিশেষ স্টিমার সার্ভিস শুরু হয়েছে। প্রায় ৭দিন আগে থেকেই শুরু হওয়া সার্ভিসটি আগামী ১০ জুলাই পর্যন্ত অব্যহত থাকবে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্পোরেশন (বিআইডব্লিউটিসি) থেকে এ তথ্য নিশ্চিত করা হয়েছে।

বিআইডব্লিউটিসির জনসংযোগ কর্মকর্তা মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম মিশা জানান, ঈদুল ফিতর উপলক্ষে আজ (বুধবার) থেকে বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ-পরিবহন কর্পোরেশনের বিশেষ স্টিমার ও ফেরি সার্ভিস শুরু হচ্ছে। এ সার্ভিস আগামী ১০ জুলাই পর্যন্ত চলবে। প্রয়োজনে সার্ভিসটি বর্ধিত করা হবে।

নদীবন্দর সূত্রে জানা গেছে, বিআইডব্লিউটিসির নিয়মিত সার্ভিস-এর পাশাপাশি ঢাকা-চাঁদপুর- বরিশাল-খুলনা নৌরুটে অত্যাধুনিক বিলাসবহুল যাত্রাবাহী জাহাজ এমভি বাঙালি ও এমভি মধুমতি রয়েছে।

এছাড়াও এ সার্ভিসে রয়েছে দেশের ঐতিহ্যবাহী প্যাডেল স্টিমার পিএস অস্ট্রিস, পিএস লেপসা, পিএস টার্ন ও পিএস মাসুদ। মূল ভূখণ্ড থেকে উপকূলীয় দ্বীপ ও দ্বীপ জেলাসমূহে জাহাজ ও সি-ট্রাক দ্বারা বিশেষ সার্ভিসও পরিচালনা করা হবে এ সার্ভিসের আওতায়।

নজরুল ইসলাম মিশা বলেন, ‘উপকূলীয় সার্ভিস চট্টগ্রাম-সন্দ্বীপ- হাতিয়া-বরিশাল রুটে আগামী ২ জুলাই (শনিবার) থেকে আগামী ৯ জুলাই (শনিবার) পর্যন্ত প্রতিদিন নিয়মিত ট্রিপসহ অতিরিক্ত আরও বিশেষ ট্রিপ পরিচালনা করা হবে।’

তিনি জানান, উপকূলীয় সার্ভিসে নিয়োজিত থাকবে এমভি বাব আউলিয়া, এমভি আব্দুল মতিন ও এমভি মনিরুল হক।

কুমিরা-গুপ্তছড়া, বরিশাল-মজুচৌধুরী হাট, মরপুরা-শশগিঞ্জ, হাতিয়া-বয়ারচর, চরচেংগা-বয়ারচর এবং ইলিশা-মজুচৌধুরীর হাটের মধ্যে এসটি শেখ জামাল, এসটি শেখ কামাল, এসটি শেখ রাসেল, এসটি সুকান্ত বাবু ও এসটি আব্দুর রব সেরনিয়াবাত এবং সি-ট্রাক খিজির-১-৮ নিয়মিত সার্ভিসের পাশাপাশি বিশেষ সার্ভিস হিসেবে পরিচালনা করা হবে বলে বিআইডব্লিউটিসি সূত্রে জানা গেছে।

অপরদিকে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া, শিশুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি, শিমুলিয়া-চরজানাজাত, শিমুলিয়া-মঙ্গলমাঝি, চাঁদপুর-শযিরয়তপুর, ভেদুরিয়া-লাহারহাট ও মতলব-গজারিয়া ফেরি সেক্টরে যাত্রী ও যানবাহন পারাপার নিয়মিত ট্রিপের পাশাপাশি ফেরিসমূহ অতিরিক্ত ট্রিব দেবে। এছাড়া ঈদের দিন সকল নিয়মিত সার্ভিস চালু রাখার ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে বলেও জানা গেছে।



« (পূর্বের সংবাদ)



মন্তব্য চালু নেই