মেইন ম্যেনু

সদর এমপির বিরুদ্ধে গুরুতর অভিযোগ প্রতিবাদে সংবাদ সম্মেলন

সাতক্ষীরা সদর আসনের সংসদ সদস্য মীর মোস্তাক আহমেদ রবি’র বিরুদ্ধে শিক্ষক ও নৈশ প্রহরি নিয়োগ এবং সদর হাসপাতাল থেকে কোটি কোটি টাকা ঘুষ গ্রহণের অভিযোগ উঠেছে। একটি বেনামী লিফলেটে সচেতন নাগরিক কমিটির লাবসা সদর, সাতক্ষীরার সভাপতি এড. শাহানেওয়াজের নাম ব্যবহার করে এই অভিযোগ করা হলেও তিনি বুধবার এক সংবাদ সম্মেলনে ঐ লিফলেটের দায়িত্ব অস্বীকার করেছেন। একই সাথে লিফলেট প্রচার করার প্রতিবাদে এবং অবৈধ ক্লিনিক বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ সাতক্ষীরা জেলা শাখার নেতৃবৃন্দ।

এড. শাহানেওয়াজের নাম ব্যবহার করে বিলিকৃত লিফলেটে দাবি করা হয়েছে, ৩০টি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নৈশ প্রহরি নিয়োগে প্রত্যেকের কাছ থেকে ৪ লাখ টাকা হিসাবে মোট ১ কোটি ২০ লাখ টাকা নেওয়া হয়েছে। লিফলেটে এমপি মীর মোস্তাক আহমেদ রবির ভাই মঈনুলকে থানার বকশি হিসেবে দাবি করে তিনি প্রতি মাসে ৫০ হাজার টাকা উত্তোলন করেন বলে দাবি করা হয়েছে।

আরো বলা হয়েছে, সদর হাসপাতালের ঔষধ এক্সরে ও রোগী ভর্তির কেবিন থেকে প্রতি সপ্তাহে ১ লাখ টাকা নেওয়ার অভিযোগ করা হয়েছে। লিফলেটে সাতক্ষীরা সিটি কলেজের অধ্যক্ষ আবু সাইদের কাছ থেকে ২০ লাখ টাকা নেওয়ার অভিযোগ করা হয়েছে।

এছাড়া জাতীয়করণকৃত সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ৬ জন শিক্ষক নিয়োগ করে প্রত্যেকের নিকট থেকে ৫ লাখ টাকা হিসাবে ৩০ লাখ টাকা নেওয়ার অভিযোগ করা হয়েছে।

বুধবার বেলা ২টায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে অনুষ্ঠিত এক সংবাদ সম্মেলনে বেনামী ঐ লিফলেটটি সাংবাদিকদের কাছে সরবরাহ করা হয় এবং লিফলেটটি সম্পর্কে সাতক্ষীরা জজ কোটের এপিপি এড. মোস্তাফিজুর রহমান শাহনেওয়াজ অবহিত নন বলে দাবি করেন।

তিনি আরো বলেন, উক্ত কাগজে যেসব তথ্য ছাপা হয়েছে তা আদৌও সত্য নয়, সম্পূর্ণ মিথ্যে ও ভূয়া। তিনি লিফলেটে তার নাম ব্যবহার করার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানান। সাতক্ষীরার সার্বিক উন্নয়নকে বাধাগ্রস্ত করতে এবং এমপি মীর মোস্তাক আহমেদ রবির সুনাম ক্ষুণ করতে এক শ্রেণির স্বার্থনেস্বী মহল তাদের হীনস্বার্থ চরিতার্থ করার জন্য এধরণের ঘৃণ্য কাজে রত আছে বলে তিনি দাবি করেন।

এদিকে উক্ত বেনামী লিফলেট ও অবৈধ ক্লিনিক বন্ধের দাবিতে বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করেছে জেলা ছাত্রলীগ। বুধবার বিকাল ৫টায় সাতক্ষীরা শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্ক থেকে বিক্ষোভ মিছিলটি বের হয়। মিছিলটি শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জেলা ছাত্রলীগ কার্যালয়ের সামনে সমাবেশে মিলিত হয়।

সমাবেশে জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি তানভীর হুসাইন সুজনের সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক এহছান হাবীব অয়ন, সহ সভাপতি জাবিব হাসান জনি, যুগ্ম সম্পাদক হাসিবুল হাসান ইমু, সাংগঠনিক সম্পাদক রেজাওয়ানুল হক (কনক), প্রচার সম্পাদক টুটুল, শহর ছাত্রলীগের সাধারন সম্পাদক মাহমুদ হাসান নয়ন, সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সভাপতি মিঠুন ব্যানার্জী, সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের রাজু প্রমুখ।

এসময় উপস্থিত ছিলেন সরকারি কলেজ ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক শাহেদ পারভেজ ইমন, ইয়ার কমিটির সভাপতি হাবিবুল্লাহ, ৫নং ওয়ার্ড ছাত্রলীগের সহ সভাপতি সবুজ, সাধারণ সম্পাদক শাওনসহ জেলা ছাত্রলীগের নেতৃবৃন্দ।






মন্তব্য চালু নেই