মেইন ম্যেনু

সদ্য ব্রেক-আপ হওয়া কাউকে যে কথাগুলো একেবারেই বলবেন না !

মানুষ একলা হয়ে পৃথিবীতে আসে। আর এখান থেকে চলে যাওয়ার সময়েও একলাই যায়। তবুও জীবনের চলার পথে প্রত্যেকটি মানুষই চায় কাউকে সাথে নিয়ে পথ চলতে। বিশেষ করে নিজের প্রতিটি পদক্ষেপে ভালোবাসার মানুষটার হাত ধরে রাখতে পছন্দ করেন সবাই। কিন্তু প্রায় প্রতিটি মানুষের জীবনেই এমন সময় আসে যখন এতদিনের চেনা-পরিচিত মুখটাও হঠাৎ করে পাল্টে যায়। শূন্যতা দখল করে নেয় অতি প্রিয় মানুষটির জায়গা। খেয়াল করে দেখুন, আপনার খুব কাছের বন্ধু অথবা কাছের কোনো মানুষটিও হয়তো হঠাৎ করেই ছেড়ে যাওয়া ভালোবাসা আর আগলে ধরা শূন্যতা প্রচণ্ডরকম কষ্টের ভেতর দিয়ে নিয়ে যাচ্ছে ঠিক এখনই। ভাবছেন কি করবেন? কি বলে সান্ত্বনা দেবেন বন্ধুকে? কমিয়ে দিতে পারবেন তার কষ্ট? তবে আর যাই করুন বা বলুন না কেন, এই কথাগুলো সদ্য ব্রেক-আপ হওয়া কোনো মানুষকে ভুল করেও বলতে যাবেন না। আর কথাগুলো হলো-

১. জীবনটা সত্যিই কষ্টের
মন ভেঙে যাওয়া একজন মানুষকে এ কথাটা বলা মানে তাকে মনে করিয়ে দেওয়া যে, সে যেই সময়টার ভেতরটা দিয়ে যাচ্ছে সেটা সত্যিই অনেক কষ্টের আর এটা থেকে তার মুক্তি নেই। আরো বেশি হতাশ করে দেয় জীবনের কষ্টকে খানিক আগেই খুব কাছ থেকে দেখে আসা মানুষটাকে এই ধরনের কথা। আর তাই জীবনটা কষ্টের, সেটা মনে না করিয়ে দিয়ে তাকে বোঝান যে জীবনে করার আরো অনেক কিছু আছে। বেঁচে থাকাটা সত্যিই আনন্দময়।

২. তুমি সত্যিই ভুল করেছ
ব্রেক-আপের পর যে কারো মনেই এই কথাটা ঘুরপাক খায়। তারওপর এই কথাটা বাইরে থেকে কারো মুখ দিয়ে শোনা মানে ব্যাপারটাকে আরো খারাপ করে তোলা। আর তাই এ ধরনের কথা বলা থেকে বিরত থাকুন।

৩. সব তোমার দোষ
সম্পর্ক ভাঙবার পেছনে কাউকে একপেষেভাবে দোষী বানানোর আগে তার মানসিক অবস্থার কথাটা একবার ভাবুন। কেউ যদি সম্পর্ক থেকে চলে আসবার পর কষ্টে থাকে তাহলে সব দোষ তার এটা বলাটা খুবই অদ্ভূত শোনাবে। এতে করে নিজেকে অযোগ্য বলে ভাবতে শুরু করে সে। হয়তো হীনমন্যতায় ভুগে বেছে নেবে ভুল কোনো পথ। আর তাই কাউকে দোষী না বলে বলুন তার জীবনের সঠিক মানুষটার সাথে নিশ্চয়ই দেখা হবে তার।

৪. তোমরা বন্ধুত্ব বজায় রাখো
সেই মানুষটা যে কিনা কিছুদিন আগেই আপনার আবেগকে ভেঙে দিয়েছে তার সাথে বন্ধুত্ব রাখবার ইচ্ছাটা নিশ্চয়ই কখনোই আপনার মাথায় খেলা করবে না। আর তাই নিজে যেটা পারবেন না সেটা পাশের কাউকে বলা থেকেও বিরত থাকুন।

৫. সময়ে সব ঠিক হয়ে যাবে
সত্যিই হয়তো সময়ে সব ঠিক হয়ে যাবে। কিন্তু তারপরেও কথাটা শুনতে সদ্য সম্পর্ক থেকে বেরিয়ে আসা কারোরই ভালো লাগবে না। কারণ আপনার এই কথাটা তাকে কেবল এটাই মনে করিয়ে দেবে সে কোন যন্ত্রণার ভেতর দিয়ে যাচ্ছে।

৬. দেখো, ওকে ঠিক পস্তাতে হবে
কারো সাথে আপনার বন্ধুর ব্রেক-আপ হয়েছে তার মানে এই নয় যে সে আর তাকে ভালোবাসে না। আর ভালোবাসার মানুষটার ক্ষতি হোক বা সে খারাপ থাকুক এটা কেউই চায় না। আর তাই বন্ধুর ভালোবাসার মানুষটিকে নিয়ে কটূক্তি করার চেষ্টা একেবারেই করেন না। কে জানে কিছুদিন পর হয়তো ভেঙে যাওয়া সম্পর্কটা জোড়া লেগে যাবে। আর তখন মাঝখান থেকে আপনার বন্ধুত্বেই ফাটল ধরবে কেবল এই কয়েকটি কথার জন্যে।

৭. তুমি অতিরিক্ত আবেগী
ভালোবাসার মানুষকে হারালে কষ্ট সবারই হয়। কেউ হয়তো সেটা বেশি প্রকাশ করেন, কেউ কম। তাই এ ধরনের কথা বলে বন্ধুকে তার নিজের চোখে ছোট বা অস্বাভাবিক বানানো থেকে বিরত থাকুন।

৮. আমি আগেই জানতাম
আগেই যদি জানতেন তাহলে বলেননি কেন? কেন সাবধান করে দেননি বন্ধুকে? নিজেকে আবেগের বশে বন্ধুর কাছে হাস্যকর করে তোলা থেকে বিরত রাখুন।

৯. ধুর! বাদ দাও
বাদ দিতে চাইলেই সবকিছু বাদ দেওয়া যায় না। কাছের কোন মানুষকে হারানো কোনো সামান্য ব্যাপার নয়। আর তাই বন্ধুর আবেগকে এই ছোট্ট কথাগুলোর মাধ্যমে উড়িয়ে দেওয়াটা মোটেও কাজের কথা নয়। কারণ আপনি তার সাথেই সব কথা শেয়ার করতে পারেন যে আপনার সব কথাকে গুরুত্ব দেয়। হয়তো আপনার এই অনাগ্রহ দেখানো একটি কথার জন্যেই নিজেকে আর কখনোই আপনার কাছে পুরোপুরি মেলে ধরবেন না আপনার বন্ধুটি।

১০. জীবন চলে যাবে
কথাটা অনেকটা সত্যি হলেও সদ্য ব্রেক-আপ হওয়া কারো কাছে সেটা মোটেও মধুর শোনাবে না। ব্যাপারটা তাকে মনে করিয়ে দেবে সবসময় যে, এরপর সে ভালোবাসার মানুষটাকে ভুলে আবার কারো সাথে সম্পর্কে জড়াবে এবং তার সাবেকও ঠিক সেটাই করবে আর ভালো থাকবে।

১১. তোমাকেই পুরোটা সামলাতে হবে
কাছের মানুষকে হারিয়ে যে কেউই একাকীত্বে ভোগে। আর এরকম কথা বলার মানে হচ্ছে তার কষ্টের জায়গাটা তার সেটা বুঝিয়ে দিয়ে স্পষ্ট করে বলা যে সে আসলেই একা। যেটা কিনা আরো অনেক বেশি মানসিকভাবে দুর্বল করে দেবে আপনার বন্ধুকে।

১২. অন্যেরা তোমার চাইতে আরো খারাপ অবস্থায় আছে
কথাটা কেবল আপনার বন্ধুটিকে এটা দেখাবে না যে কারা তার চাইতে আরো খারাপ অবস্থায় রয়েছে। বরং এটাও দেখাবে যে আরো অনেকে তার চাইতে ভালো অবস্থায় রয়েছে। এতে করে তার মন খারাপ হবে।

তথ্যসূত্র- লাইফহ্যাক






মন্তব্য চালু নেই