মেইন ম্যেনু

সন্তান পালন বড় ঝামেলার, তাই দু’বছরের ছেলেকে খুনের চেষ্টা বাবার

নাথান পুলিশকে জানিয়েছেন, ‘আমি আমার সন্তানকে মেরে ফেলতে চাইছিলাম এবং সেটা সম্পূর্ণ ইচ্ছাকৃতভাবে। ’

সন্তানের দায়িত্ব নেওয়া, তাকে মানুষ করা — মোটেই সহজ কাজ নয়। বাবা হওয়ার ঝুক্কি অনেক। কিন্তু একবার যখন বাবা হয়েই গেছেন, সেইসব ঝুক্কি তো সামলাতেই হবে। তবে কলোরাডোর বাসিন্দা নাথান ওয়েটজিল এসব ঝুক্কি থেকে দূরে যেতে চেয়েছিলেন। তার জন্য যে পদক্ষেপ তিনি নিলেন, তা একেবারে অকল্পনীয়। বাবার যাবতীয় দায়িত্ব থেকে মুক্তি পেতে তিনি খুন করার চেষ্টা করলেন আড়াই বছরের সন্তানকে।

নাথান পুলিশকে জানিয়েছেন, ‘আমি আমার সন্তানকে মেরে ফেলতে চাইছিলাম এবং সেটা সম্পূর্ণ ইচ্ছাকৃতভাবে। ’ ঘটনায় তদন্তকারী দল নাথানের থেকে জিজ্ঞাসাবাদের পরে সংবাদমাধ্যকে জানিয়েছে, ‘নাথান এটা করতে চাইছিলেন সন্তান পালনের যাবতীয় দায়িত্ব থেকে মুক্তি পেতে। কারণ তিনি মনে করেন এই দায়িত্ব পালনের যোগ্য তিনি এখনও নন।’

সন্তানকে খুন করার জন্য আগে থেকেই পরিকল্পনা করেছিলেন নাথান। তাকে গাড়িতে করে নিয়ে যাচ্ছিলেন তিনি। গাড়ির গতিবেগ ছিল ঘন্টায় ৭৫ কিলোমিটারের উপর। পরিকল্পনা ছিল, একটি পার্কের কাছে গিয়ে গাড়িটি ধাক্কা দেওয়ার এবং সেটাই করেছিলেন তিনি। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন, নাথান নাকি বারবার প্রতিবেশীর বাড়ির মাঠে গাড়িটিকে ধাক্কা দিচ্ছিলেন এবং পাশাপাশি, শিশুটিকেও কনুই দিয়ে মারছিলেন৷ এই ঘটনায় গুরুতর জখম হয়েছে শিশুটি৷ ভাঙা পা ও মাথায় ২০ টি সেলাই নিয়ে সে এখন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনায় গভীর মর্মাহত হয়েছেন বাচ্চাটির মা নানসি লোপেজ। তাঁর বিন্দুমাত্র ধারণা ছিল না তাঁর স্বামী এমন কাণ্ড ঘটাতে পারেন বলে। পুলিশ নাথানকে গ্রেফতার করেছে। -এবেলা






মন্তব্য চালু নেই