মেইন ম্যেনু

সবচেয়ে বেশি শূন্যরানের লজ্জার রেকর্ডধারী ৫ ক্রিকেটার

নিউজিল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টি ম্যাচে ৬ উইকেটের বড় ব্যবধানে হেরেছে বাংলাদেশ। এমন হারে মর্মাহত টাইগার সমর্থকরা।

বছরের শুরুর ম্যাচে এমন হার মেনে নিতে পারছেন না অনেকেই। আবার ‘গোল্ডেন ডাকে’ বছর শুরু সৌম্য সরকারের- এই শিরোনামে টালমাটাল ভার্চুয়াল জগত থেকে শুরু করে বেশ কিছু সংবাদমাধ্যম। বাদ যাচ্ছে না ইমরুল কায়েসের শূন্য রানের আউটের সমালোচনাও।

তবে এক ডাকেই (শূন্য রানে আউট) কী ধুলিসাৎ হয়ে গেছে ইতিহাস? মোটেও নয়! কেননা সৌম্য কিংবা ইমরুল কায়েস শূন্যরানে আউট হয়ে সর্বোচ্চ শূন্যরানে আউট হওয়ার রেকর্ডধারীদের কাছাকাছি যেতেও আরো অনেকবার ডাক মারা লাগবে সৌম্য-ইমরুলকে। তবেই তারা দুজন শূন্যরানের লজ্জ্বার রেকর্ডে ভাগ বসাতে পারবেন।

যদি ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটের কথা বলা হয় তবে দেখা যাবে এমন অনেক ক্রিকেটার আছেন যারা ব্যাট করতে নেমে রানের খাতা খোলার আগেই প্যাভিলিয়নে ফেরত গেছেন। টেস্ট, ওয়ানডে কিংবা টি-টোয়েন্টি সব মিলিয়ে সবচেয়ে বেশি শূন্যরানে (ডাক) আউট হয়েছেন শ্রীলংকান স্পিন কিংবদন্তি মুত্তিয়া মুরালিধরন।

তিনি তার আন্তর্জাতিক ক্রিকেট ক্যারিয়ারে সবচেয়ে বেশিবার শূন্যরানে আউট হয়ে এককভাবে এই লজ্জ্বাররেকর্ডে আধিপত্য করছেন। এমটিনিউজ পাঠকদের জন্য আজ আমরা এমনই পাঁচজন ক্রিকেটারকে তুলে ধরব যারা ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটে সবচেয়ে বেশিবার শূন্যরানে (ডাক) আউট হয়েছেন।

১. মুত্তিয়া মুরালিধরন (শ্রীলংকা):

শ্রীলংকান সাবেক এই কিংবদন্তি ক্রিকেট ইতিহাসে সর্বোচ্চ উইকেট শিকারি সেটা অজানা নয় কারো। কিন্তু তিনি যে সবচেয়ে বেশিবার শূন্যরানে আউট হয়েছেন সেটাও আজ জানা হয়ে গেল। মুত্তিয়া মুরালিধরন ক্রিকেটের তিন ফরম্যাটে ৪৯৫ ম্যাচে সর্বোচ্চ ৫৯ বার শূন্যরানে আউট হওয়ার রেকর্ড গড়েছেন।

২. কোর্টনি ওয়ালশ (ওয়েস্ট ইন্ডিজ):
বাংলাদেশ ক্রিকেট দলের বোলিং কোচ কোর্টনি ওয়ালশ। তার সময়ে তিনি সেরাদের সেরা বোলার ছিলেন। ক্যারিবিয়ান সাবেক এই কিংবদন্তি দেশের হয়ে টেস্ট এবং ওয়ানডে ম্যাচ খেলেছেন। ৩৩৭টি ম্যাচ খেলা কোর্টনি ওয়ালশ ৫৪ বার শূন্য রানে আউট হওয়ার রেকর্ড গড়েছেন। মুরালিধরনের মতো টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেললে হয়তো শূন্য রানে আউট হওয়াদের তালিকায় শীর্ষে থাকতেন মাশরাফি-মুস্তাফিজদের কোচ।

৩. সনাৎ জয়সুরিয়া (শ্রীলংকা):
শ্রীলংকান সাবেক অধিনায়ক সনাৎ জয়সুরিয়া ব্যাট হাতে ২১ হাজারের অধিক রান করেছেন। তার সময়ে সেরা ব্যাটসম্যানদের মধ্যে একজন ছিলেন জয়সুরিয়া। দেশের হয়ে সব ফরম্যাটে ব্যাট হাতে নামার সুযোগ হয়েছে তার। শ্রীলংকার হয়ে ৫৮৬ ম্যাচ খেলে জয়সুরিয়া তৃতীয় সর্বোচ্চ ৫৩বার শুন্যরানে আউট হয়েছেন।

৪. গ্লেন ম্যাকগ্রা (অস্ট্রেলিয়া) :
অস্ট্রেলিয়ার হয়ে নিজের নামের পাশে ৯৪৯টি উইকেট যোগ করেছেন গ্লেন ম্যাকগ্রা। তার সময়ে অস্ট্রেলিয়ার হয়ে ম্যাচ জয়ের নির্ধারক ছিলেন ম্যাকগ্রা। তার বোলিংয়ের লাইন ও লেন্থ এর সাথে ছিল গতির ছড়াছড়ি। তবে ব্যাট হাতে বেমানান ছিলেন ম্যাকগ্রা। অস্ট্রেলিয়ার হয়ে তিন ফরম্যাটে ৩৭৬ ম্যাচ খেলা ম্যাকগ্রা শূন্যরানে আউট হয়েছেন মোট ৪৯ বার।

৫. মাহেলা জয়াবর্ধানে (শ্রীলংকা):
শ্রীলংকান এই সাবেক ব্যাটিং লিজেন্ড দলের হয়ে প্রায় ২৬ হাজার রান করেছেন। তিন ফরম্যাটে মিলে ৬৪টি সেঞ্চুরিও হাঁকিয়েছেন মাহেলা জয়াবর্ধানে। তাকে শ্রীলংকার প্রাচীর বলে আখ্যায়িত করেন অনেকেই। আবার কেউ কেউ তাকে আদর্শ মেনে চলেন। কিন্তু সাবেক এই শ্রীলংকান অধিনায়ক অনন্য হয়ে আছেন অন্য কারণেও। কেননা সবচেয়ে বেশিবার শূন্যরানে আউট হওয়াদের তালিকায় মাহেলা আছেন তালিকার পঞ্চম স্থানে। ৬৫২টি ম্যাচ খেলে ৪৭ বার শূন্যরানে আউট হয়েছেন মাহেলা জয়াবর্ধানে।-রাইজিং






মন্তব্য চালু নেই