মেইন ম্যেনু

সবচেয়ে ভয়ঙ্কর বিয়ের প্রস্তাব, মাথা খারাপ হওয়া অবস্থা!

এমন বিয়ের প্রস্তাব কেউ কখনো দিয়েছিলেন কি-না হলফ করে বলতেও পারবেন না।
তবে এক মেয়েকে এভাবে প্রস্তাব দেয়ার ঘটনা বিশ্ববাসীকে রীতিমত নাড়া দিয়েছে, যা শুনলে মাথা খারাপ হওয়া অবস্থা।

ঘটনাটি ঠিক এরকম- নির্জন রাস্তার ওপর গাড়ি থেকে নেমে দাঁড়িয়ে আছেন ৩ পুলিশ সদস্য। হঠাৎ পাশ দিয়ে যাওয়া একটি প্রাইভেট কারকে গতিরোধ করেন তারা।

এরপর গাড়িতে চালকের পাশের সিটে বসা তার প্রেমিকাকে টেনে-হেঁচড়ে

বের করেন। শুধু বের করেই ক্ষ্যান্ত থাকলেন না, রাস্তায় পিচের ওপর ফেলে মেয়েটির গলা টিপে ধরলেন।

এরপর গলা ধরে টানতে টানতে পুলিশের গাড়িটির পেছনে নিয়ে ফেললেন। সেখানেই হাঁটু গেঁড়ে বসে হীরার অাংটি নিয়ে অপেক্ষা করছিলেন এক যুবক। তিনি আর কেউ নন ওই নারীর প্রেমিক ভ্লাড লুনগু।

বিয়ের প্রস্তাব দেয়ার জন্য প্রেমিক ভ্লাড এ পরিকল্পনা এঁটেছেন বুঝতে পারার পরও অালেকজান্দ্রা নামের ওই মেয়ের কয়েক মুহূর্ত সময় লেগেছিল আতঙ্ক কাটিয়ে উঠতে। কিন্তু ততক্ষণে তার চোখে জল ছলছল করছিল।

এরপর কয়েক সেকেন্ড হাসিতে ফেটে পড়েন ভ্লাড। জিজ্ঞাসা করেন, তুমি কি আমাকে বিয়ে করবে? এর জবাবে আলেকজান্দ্রা মাথা নাড়ান এবং শান্তভাবে ‘হ্যাঁ’ উত্তর দেন।

অদ্ভুত ঘটনাটি ঘটেছে মধ্য রোমানিয়ার ব্রাসভে। এ বিয়ের প্রস্তাবকে ব্রিটেনের ডেইলি মেইল সবচেয়ে ভয়াঙ্কর বিয়ের প্রস্তাব বলে শিরোনাম করেছে।






মন্তব্য চালু নেই