মেইন ম্যেনু

সবজির দাম স্থির, মাংসের দাম বাড়তি

শীত বিদায় নিয়ে বসন্ত এসে গেছে। কিন্তু বাজারে এখনো শীতের রেশ কিছুটা রয়ে গেছে। বাজারে এখনো পাওয়া যাচ্ছে হরেক রকমের শীতের সবজি। এসব সবজির দাম গত এক সপ্তাহ ধরে স্থির রয়েছে। তবে বেড়েছে খাসি, দেশি মুরগি ও গরুর মাংসের দাম। কিছুটা কমেছে রসুন ও ডিমের দাম।

রাজধানীর দুয়েকটি বাজার ঘুরে দেখা গেছে, করলা, বরবটি, কাঁচামরিচসহ কিছু সবজির দাম কিছুটা বেড়েছে। তবে বেশিরভাগ সবজির দাম কয়েক সপ্তাহ ধরেই কিছুটা স্থির। মাছের দাম নিয়ে ক্রেতা-বিক্রেতার রয়েছে বিপরীত প্রতিক্রিয়া। আর কেজিতে প্রায় ৫০ থেকে ৭০ টাকা পর্যন্ত বেড়েছে খাসির মাংসের দাম।

শুক্রবারের বাড়তি চাহিদার কথা মাথায় রেখে পর্যাপ্ত সবজিতে সাজানো রাজধানীর কাঁচাবাজার। বিক্রেতারাও জানালেন শিম, টমেটো, ফুলকপি, লাউ, মিষ্টি কুমড়াসহ বেশিরভাগ সবজির দাম জানুয়ারি থেকে এখনো স্থির রয়েছে।

তবে বাজারে কিছুটা বাড়তি নতুন আসা সবজির দাম। শীতের শেষ দিকে বাজারে উঠতে শুরু করেছে করলা ও বরবটি। এ দুটি সবজির দাম অন্য সবজির ‍তুলনায় কিছুটা বেশি।

বাজার ঘুরে দেখা গেছে, প্রতি কেজি করলা বিক্রি হচ্ছে ৩০ থেকে ৩৫ টাকায় ও বরবটি বিক্রি হচ্ছে ৪০ টাকায়। তবে বাজারে একই পণ্যের দামের হেরফের রয়েছে বলে অভিযোগ করলেন ক্রেতারা।

মানভেদে প্রতি কেজি গোল আলু বিক্রি হচ্ছে ৩০ টাকা থেকে ৩৫ টাকায়, ২০ টাকা ৩০ টাকা কেজিতে শালগম। কাঁচকলার হালি ২০ টাকা, প্রতিটি ফুলকপি ২০ থেকে ২৫ টাকায় ও বেগুন বিক্রি হচ্ছে ২০ থেকে ৩০ টাকায়।

কাঁচামরিচ ৬০ টাকা থেকে ৮০ টাকায়, টমেটো ২০ টাকা থেকে ৩০ টাকায়, শশা ২৫ টাকা থেকে ৩৫ টাকায়, পটল ৪০ টাকা থেকে ৪৫ টাকায়, মুলা ২০ টাকা থেকে ২৫ টাকায়, ঝিঙা ২৫ টাকা থেকে ৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে।

বিভিন্ন ধরনের শাকের আঁটি ১৫ থেকে ২০ টাকা ও কেজি ২৫ থেকে ৩০ টাকায় বিক্রি হচ্ছে। প্রতি আঁটি মুলা শাক মিলছে ১০ ও ১৫ টাকায়, লাল শাক ১৫ ও ২০ টাকায়।

বাজারে ডিমের দাম হালিতে দু’টাকা কমেছে। বাজারে প্রতি হালি ফার্মের মুরগির (লাল) ডিম বিক্রি হচ্ছে ৩৬ থেকে ৩৮ টাকায়। হাঁসের ডিমের হালি (আকারভেদে) ৪৬ টাকায়।

মাছ বাজারেও দেখা গেল পর্যাপ্ত সরবরাহ। চিংড়ি, কাতল, বোয়াল, পাবদা, ইলিশসহ সব মাছ বিক্রি হচ্ছে আগের দামে। বিক্রেতারা এমন দাবি করলেও দাম বাড়তির অভিযোগ ক্রেতাদের।

এদিকে, ব্রয়লার মুরগি ১৬০ কেজি হিসেবে বিক্রি হতে দেখা গেছে। গরুর মাংস বিক্রি হচ্ছে ৪০০ টাকায়, কোথাও কোথাও ৩৯০ টাকায়ও বিক্রি হতে দেখা গেছে।

কয়েকদিন আগেও রাজধানীতে খাসির মাংস বিক্রি হতো ৫০০ থেকে ৫৮০ টাকায়। শুক্রবার তা ৫৫০ থেকে ৬২০ টাকায় বিক্রি হতে দেখা গেছে। অর্থাৎ প্রতি কেজি খাসির মাংসের দাম বেড়েছে ৫০ থেকে ৭০ টাকা।

এর কারণ হিসেবে চাহিদার চেয়ে সরবরাহ অনেক বেশি বলে জানালেন বিক্রেতারা।






মন্তব্য চালু নেই