মেইন ম্যেনু

সবার দৃষ্টি সুপ্রিম কোর্টে

একদিকে জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীর রিভিউ আবেদনের আদেশ, অন্যদিকে বিচারপতিদের অপসারণের ক্ষমতাসংক্রান্ত ষোড়শ সংশোধনীর বৈধতা প্রশ্নে রায়।

হেভিওয়েট এই দুই মামলার সর্বশেষ আইনি লড়াইয়ের ফলাফল জানতে আজ সবার দৃষ্টি সুপ্রিম কোর্টের দিকে।

বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় রিভিউ আবেদনের রায়ে জানা যাবে নিজামীর রায় কী হবে- মৃত্যুদণ্ড, যাবজ্জীবন কারাদণ্ড, আমৃত্য কারাদণ্ড, মেয়াদভিত্তিক সাজা নাকি খালাস। অন্যদিকে বিচারপতিদের অপসারণের ক্ষমতা সংসদের হাতে যাবে কি যাবে না, সেটাও জানা যাবে দুপুর ২টায় হাইকোর্টের রায়ে।

নিজামীর রিভিউ : নিজামীর রিভিউ আবেদন আদেশের জন্য আজকের কার্যতালিকায় ১ নম্বরে রাখা হয়েছে। বেলা সাড়ে ১১টা রায় ঘোষণার সময় নির্ধারণ করা হয়েছে।

প্রধান বিচারপতি সুরেন্দ্র কুমার সিনহার নেতৃত্বে চার বিচারপতির আপিল বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করবেন। বেঞ্চের অন্য সদস্য বিচারপতি নাজমুন আরা সুলতানা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন ও বিচারপতি হাসান ফয়েজ সিদ্দিকী।

এর আগে মঙ্গলবার রিভিউ আবেদনের শুনানি শেষে রায় ঘোষণার জন্য বৃহস্পতিবার দিন ধার্য করেন আপিল বিভাগ।

গত ২৯ মার্চ ফাঁসির দণ্ড থেকে খালাস চেয়ে রিভিউ আবেদন দাখিল করেন নিজামী। ৭০ পৃষ্ঠার রিভিউ আবেদনে ফাঁসির দণ্ড থেকে খালাস চেয়ে ৪৬টি যুক্তি দেখানো হয়েছে।

নিয়ম অনুযায়ী, রিভিউ নিষ্পত্তির আগে তার দণ্ড কার্যকর করা যাবে না। আর রিভিউ খারিজ হয়ে গেলে সেই রায়ের অনুলিপি কারাগারে যাবে এবং কারা কর্তৃপক্ষ সরকারের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী আসামির ফাঁসি কার্যকর করবে।

গত ১৫ মার্চ নিজামীর আপিলের পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। প্রধান বিচারপতি এস কে সিনহাসহ আপিল বিভাগের চার বিচারপতির স্বাক্ষরের পর এ রায় প্রকাশ করা হয়। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশনা অনুযায়ী, পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশের ১৫ দিনের মধ্যে রিভিউ আবেদন করার বাধ্যবাধকতা রয়েছে।

গত ৬ জানুয়ারি বুদ্ধিজীবী হত্যার পরিকল্পনাকারী ও উসকানিদাতাসহ মানবতাবিরোধী তিনটি অপরাধের দায়ে দোষী জামায়াতের আমির মতিউর রহমান নিজামীর ফাঁসির রায় বহাল রাখেন সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনালের ফাঁসির রায়ের বিরুদ্ধে নিজামীর করা আপিল আংশিক মঞ্জুর করে রায় ঘোষণা করা হয়।

বুদ্ধিজীবী নিধনসহ মানবতাবিরোধী অপরাধের দায়ে দোষী সাব্যস্ত করে ২০১৪ সালের ২৯ অক্টোবর নিজামীকে মৃত্যুদণ্ড দেন আন্তর্জাতিক অপরাধ ট্রাইব্যুনাল-১।

ষোড়শ সংশোধনী নিয়ে রায় : বিচারপতিদের অপসারণের ক্ষমতা সংসদের কাছে ফিরিয়ে নিতে সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনীর বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে করা রিটের রায় আজ বৃহস্পতিবার ঘোষণা করা হবে।

বিচারপতি মইনুল ইসলাম চৌধুরীর নেতৃত্বাধীন হাইকোর্টের বিশেষ বেঞ্চ এ রায় ঘোষণা করবেন। বেঞ্চের অন্য দুই সদস্য হলেন বিচারপতি কাজী রেজা-উল হক ও বিচারপতি মো. আশরাফুল কামাল। রায় ঘোষণার জন্য দুপুর ২টা সময় নির্ধারণ করা হয়েছে।

২০১৪ সালের ১৭ সেপ্টেম্বর বিচারপতি অপসারণের ক্ষমতা সংসদের কাছে ফিরিয়ে নিতে সংবিধানের ষোড়শ সংশোধনী আনা হয়। বিলটি পাসের পর ২২ সেপ্টেম্বর তা গেজেট আকারে প্রকাশ করা হয়।

সংবিধানের এ সংশোধনীর বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে ওই বছরের ৫ নভেম্বর সুপ্রিম কোর্টের নয় আইনজীবী হাইকোর্টে এ রিট আবেদন করেন।

হাইকোর্ট এ সংশোধনী কেন অবৈধ, বাতিল ও সংবিধানপরিপন্থী ঘোষণা করা হবে না, তা জানতে চেয়ে রুল জারি করেন।

গত বছরের ২১ মে রুলের শুনানি শুরু হয়। চলতি বছরের ১০ মার্চ এ রুলের শুনানি শেষে ৫ মে রায়ের দিন ধার্য করেন হাইকোর্ট।






মন্তব্য চালু নেই