মেইন ম্যেনু

সমকামী ব্যক্তিদের বেত্রাঘাতের আইন পাশ!

সমকামী ব্যক্তিদের নিয়ে বিভিন্ন সময়ে বিভিন্ন আলোচনা চলছেই। তাদের নিয়ে বিভিন্ন দেশে ব্যাপক আইনের প্রচলনও রয়েছে। এবার ইন্দোনেশিয়ায় সমকামীদের নিয়ে নতুন আইন পাশ করা হল। প্রকাশ্যে যদি কোন সমকামীদের যৌন কাজে লিপ্ত থাকতে দেখা যায় তাহলে সবার সামনে তাদের ১০০টি বেত্রাঘাত করা হবে।

বান্দা আচেহ প্রদেশে গত বছর ‘অমানবিক’ রেগুলেশনের সাথে পরিচয় করানো হয়। কিন্তু কর্মকর্তারা বলেন, এই সপ্তাহ পর্যন্ত এটি বাস্তবায়নের কাজ বন্ধ রাখা হবে। তারা এই ব্যাপারে সকলকে আগে অবগত করবেন তারপর এই আইন চালু করা হবে।

সেইসাথে একই লিঙ্গের কারো সাথে যৌন সম্পর্ক থাকার ফলে ধরা পড়লে তাকে প্রায় এক কিলোগ্রাম স্বর্ণের জরিমানা করা হবে এবং ১০০ মাসের জন্য তাকে জেলে পাঠানো হতে পারে। তাছাড়া, প্রকাশ্যে সকলের সামনে ১০০ বার অবশ্যই বেত্রাঘাত করা হবে।

এছাড়াও ব্যভিচারের অভিযোগে ১০০ বার বেত্রাঘাত করা হবে। কিন্তু এক্ষেত্রে কোন কারাদন্ড থাকবে না।

যারা প্রকাশ্যে মদপান করবে, জুয়া খেলবে, শুক্রবারের নামাজ পড়বে না এবং যে সকল নারীরা টাইট পোশাক পরিধান করবে তাদেরকেও প্রকাশ্যে সমালোচনা করা হবে।

মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ ইন্দোনেশিয়ায় অন্যান্য অঞ্চলের তুলনায় আচেহ আরো কঠোরভাবে ধর্মীয় বিধিনিষেধ পালন করা হয় এবং ইসলামী আইনের আওতায় চলা একমাত্র প্রদেশ হিসেবে গণ্য করা হয়।

এটা বিশ্বাস করতে কঠিন হলেও সেখানে ব্যভিচারকারীদের পাথর মেরে হত্যা করার আইন রয়েছে। কিন্তু কেন্দ্রীয় সরকারের কাছ থেকে চাপ আসার পর এই আইন বাদ দেয়া হয়।

ইসলামী শরীয়তের প্রধান শাহরিজাল আব্বাস বলেন, ‘আইন প্রণয়নের নির্দেশনা নিয়ে কোন দুশ্চিন্তার কারণ নেই। এটা ইসলামী আইন পক্ষাবলম্বীদের জন্য ছায়া হয়ে দাঁড়িয়েছে’।

এই শহরের বাহিরে কেন্দ্রীয় সরকার সমকামিতাকে অপরাধ হিসেবে গণ্য করেন নি। মানবাধিকার সংস্থার মতে, ইন্দোনেশিয়া সংখ্যালঘুদের অধিকার রক্ষার স্বাক্ষরিত চুক্তি লঙ্ঘন করেছেন এবং এই নতুন আইনের বিরুদ্ধে রয়েছেন তারা।

আব্বাস বলেন, ‘এটা মানবাধিকার লঙ্ঘন করে না বরং এটা মানুষের মর্যাদা উত্থাপন করবে’।

এই আইন সব মুসলিম, অমুসলিম ও যারা এই শহরের একটু জায়গাতে অবস্থান করছে তাদের জন্য প্রযোজ্য। তবে আব্বাস জানিয়েছেন, তারা এই আইন বা জাতীয় ফৌজদারী কোড অনুসরণ করতে ইচ্ছুক কিনা সে সম্পর্কে আগে নির্বাচন করে নিবেন। -সূত্র: মেট্রো।






মন্তব্য চালু নেই