মেইন ম্যেনু

সম্পর্কের ইতি টানার আগে আরেকবার ভাবুন

জীবনে সমস্যা থাকবেই। থাকতেই পারে। তবে সম্পর্ক একদম শেষ করার আগে নিজেকে কিছু প্রশ্ন করুন। পৃথিবীতে আদর্শ সম্পর্ক বলে কিছু নেই। অন্য সব বিষয়ের মতোই সম্পর্কে সমস্যা থাকে। এই সমস্যা নিয়ে দু’জন মানুষের একসঙ্গে এগিয়ে যাওয়াই আসলে সফল সম্পর্কের লক্ষণ। তবে কোনো কোনো সময় সমস্যা এতই বেড়ে যায় যে একসঙ্গে এগিয়ে যাওয়া দূরে থাক টিকে রাখাই মুশকিল হয়ে যায়। তখন আসে একলা চলার চিন্তা।

সম্পর্ক শেষ করার আগে কয়েকটি প্রশ্ন নিজেকে করে বুঝে নিতে যে সম্পর্ক আসলেই শেষ করা প্রয়োজন কি না। হয়তো একটা সুযোগ দিলে সম্পর্কটা ঠিক হয়েও যেতে পারে—

সর্বাত্মক চেষ্টার অভাব
সম্পর্ক শেষ করার আগে অন্তত একবার গভীরভাবে ভাবতে হবে একসঙ্গে থাকার চেষ্টায় নিজের পক্ষ থেকে কোনো ত্রুটি ছিল কি না। সঙ্গীর সঙ্গে কি খোলামেলা আলোচনা করা হয়েছিলো? সম্পর্ক থেকে নিজের কী চাওয়া আছে অথবা সঙ্গী কী চাচ্ছে? পাশাপাশি এটাও জানা জরুরি একজন আরেকজনের মধ্যে কী পরিবর্তন আশা করেছিলেন।

কারণ যখন সময়
এমনও তো হতে পারে সম্পর্কটা বেড়ে ওঠার যথাযথ সময় পায়নি। একজন আরেকজনের সঙ্গে আরও সময় কাটালে হয়তো ভুল বুঝাবুঝি কমে আসতে পারে। কে জানে হয়তো সারাজীবন মনে রাখার মতো সুন্দর কোনো মুহূর্ত খুঁজে পাওয়া যাবে। তাই একদম শেষ করে দেয়ার আগে একসঙ্গে আরও কিছু একান্ত সময় কাটানোর কথা ভাবা যেতে পারে।

ভেঙে পড়ার কারণ
সম্পর্ক ভেঙে ফেলার আগে অবশ্যই পরিষ্কার করে জানতে হবে সম্পর্কটা কেনো ভেঙে ফেলতে চাওয়া হচ্ছে। এটার কারণ যদি মাদকাশক্তি হয়, শারীরিক বা মানসিক নির্যাতন হয়, যৌতুকের জন্য চাপ দেয়া হয়, তবে যত দ্রুত সম্ভব সেটা ভেঙে ফেলাই উচিত।

অন্যের কারণে ভাঙছে?
তবে কারণ যদি এমন হয় যে সঙ্গীর পরিবারের সদস্যদের বা বন্ধুদের পছন্দ হচ্ছে না। অথবা সঙ্গীর কাজের ব্যস্ততার কারণে দূরত্ব তৈরি হচ্ছে তবে অবশ্যই এই সম্পর্ক ভাঙা ঠিক না। সম্পর্কের মূল কথা হচ্ছে দু’জনে মিলে ভালো থাকা। এখানে ছোটখাটো সমস্যা আসতে পারে কিছু বিরক্তিকর অপ্রিয় মানুষও আসতে পারে। শুধু তাদের কথায় বা কাজে নিজেদের মধ্যে এমন মনোমালিন্য সৃষ্টি করা অনুচিত যা ভাঙন তৈরি করে।

হারিয়ে ফেলার ভয়
সম্পর্কের তিক্ততা অনিরাপদ বোধ থেকেও আসতে পারে। কখনও কখনও একসঙ্গে থাকার অতিরিক্ত চেষ্টা সম্পর্ক ভাঙনের কারণ হতে পারে। সম্পর্ককে একটু সময় আর নিজের মতো স্বাধীন করে দিলেই এই সমস্যা থেকে মুক্ত থাকা যায়।






মন্তব্য চালু নেই