মেইন ম্যেনু

সম্পূর্ণ নগ্ন হয়ে অভিনয় করেছেন যেসব নায়িকা

হলিউড বা ইউরোপীয় ফিল্মের তুলনায় ভারতীয় চলচ্চিত্রে নগ্নদৃশ্যের সংখ্যা কম। কিন্তু তাই বলে এমনটা ভাবার কারণ নেই যে, ভারতীয় অভিনেতা-অভিনেত্রীরা কখনওই ক্যামেরার সামনে নগ্ন হননি। সেন্সর বোর্ডের রক্তচক্ষু এড়িয়ে অনেক ভারতীয় ফিল্মেই থেকে গিয়েছে নগ্নতা। এখানে রইল এমন কিছু ভারতীয় অভিনেত্রীর কথা যাঁরা ক্যামেরার সামনে নগ্ন হয়ে অভিনয় করেছেন। ভারতীয় গণমাধ্যম এবেলা এমন খবর প্রকাশ করেছে।

সীমা রহমানি (‘সিনস’, ২০০৫):

বিনোদ পাণ্ডে পরিচালিত ‘সিনস’ নামের ছবিটি এক ক্যাথোলিক পাদ্রীর কাহিনি বলে যিনি একটি অল্পবয়সী মেয়ের সঙ্গে প্রণয়-সম্পর্কে লিপ্ত হয়ে পড়েন। ফিল্মের একটি অংশে শাইনি আহুজার সঙ্গে ভালবাসার দৃশ্যে সীমা রহমানি সম্পূর্ণ নগ্ন হন। তাঁর শরীরের সামনের অংশও সম্পূর্ণ ধরা পড়ে ক্যামেরায়। ক্যাথোলিক সমাজ এই ফিল্মের বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানায়।

পাওলি দাম (‘ছত্রাক’, ২০১১):

এই ফিল্মের প্রাসঙ্গিক দৃশ্যটি ইতিমধ্যেই ইন্টারনেটের দৌলতে অনেকেরই দেখা হয়ে গিয়েছে। এই দৃশ্যেও পাওলির সঙ্গী ছিলেন সেই অনুব্রত। শ্রীলঙ্কান পরিচালক বিমুক্তি জয়সুন্দর পরিচালিত ফিল্মটির সেই বিখ্যাত দৃশ্যটিতে পাওলির সম্মুখ-নগ্নতা ধরা পড়েছিল।

সিমি গ্রেবাল (‘সিদ্ধার্থ’, ১৯৭০):

হারমন হেসের উবন্যাস অবলম্বনে কনরাড রুকস পরিচালনা করেন ইংরেজি ভাষার এই ছবি। এর একটি দৃশ্যে সম্পূর্ণ নগ্ন হয়ে অভিনয় করেছিলেন সিমি। সঙ্গে ছিলেন শশি কপুর। দৃশ্যটি স্বভাবতই যথেষ্ট বিতর্ক তৈরি করে।

দীপা শাহি (‘মায়া মেমসাব’, ১৯৯৩):

কেতন মেহতা পরিচালিত এই ছবির একটি শয্যাদৃশ্যে শাহরুখ খানের সঙ্গে নগ্ন হয়েছিলেন দীপা। ছবিটি ছিল ‘মাদাম বোভারি’র একটি অক্ষম ভারতীয় সংস্করণ।

ঋ (‘গান্ডু’, ২০১০):

তালিকায় শেষ নামটি বাঙালি অভিনেত্রী ঋ-এর। কিউ পরিচালিত এই ছবিতে সহ-অভিনেতা অনুব্রতর সঙ্গে একটি শয্যাদৃশ্যে সম্পূর্ণ নগ্ন হয়েছিলেন ঋ। তাঁর গোপনতম অঙ্গও ধরা পড়েছিল ক্যামেরায়। এরপর ‘কসমিক সেক্স’ নামের আর একটি ফিল্মেও নগ্ন হয়ে অভিনয় করেছিলেন ঋ।






মন্তব্য চালু নেই