মেইন ম্যেনু

সরকারকে ক্ষমা চাইতে বললেন এরশাদ

মাগুরায় যুবলীগের দুই পক্ষের গোলাগুলিতে গর্ভের সন্তান গুলিবিদ্ধের ঘটনায় সরকারকে জাতির কাছে ক্ষমা চাইতে বললেন হুসেইন মুহম্মদ এরশাদ।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বৃহস্পতিবার দুপুরে গুলিবিদ্ধ মা নাজমা বেগম ও শিশুটিকে দেখতে যান তিনি। পরে সাংবাদিকদের সাথে আলাপকালে এ মন্তব্য করেন এরশাদ।

গুলিবিদ্ধ শিশুটিকে ডাক্তাররা প্রথমে ‘বুলেটকন্যা’ ডাকলেও বাবার কাছ থেকে মেয়েটি নাম পেয়েছে ‘সুরাইয়া’।

ঢামেকে মা-শিশুর অবস্থার খোঁজ নিয়ে হাসপাতাল থেকে বের হয়ে গণমাধ্যমকে এরশাদ বলেন, ‘মায়ের পেটে শিশু হত্যা চেষ্টার জন্য যারা দায়ী তাদের বিচার হওয়া উচিত। কিন্তু তাদের বিচার হবে কি না জানি না। সরকারের উচিত এ ঘটনার জন্য জাতির কাছে ক্ষমা চাওয়া।’

‘কেন এই ঘটনা ঘটছে, মাদকাসক্তি নাকি বিচারহীনতা। কারণ যাই হোক যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে তারা জানে তাদের বিচার হবে না, মন্তব্য করেন জাতীয় পার্টির চেয়ারম্যান।’

‘মায়ের পেটের শিশু নিরাপদ নয়, এটা আমরা ভাবতেও পারি না। আমরা কত বর্বর হয়ে গেছি। আমরা এখন আর মননশীল জাতি নই। এই সমাজের পরিবর্তন দরকার। ইনশাআল্লাহ পরিবর্তন আসবে,’ মন্তব্য করেন এরশাদ।

এরশাদ বলেন, ‘এখন অভিনব পন্থায় শিশুদের ওপর বর্বর নির্যাতন হচ্ছে। এই অভিনব পন্থা কীভাবে এল? কত বর্বর মানুষ। মানুষ কিভাবে বাঁচবে, বাংলাদেশ কিভাবে বাঁচবে? যারা এই ঘটনা ঘটিয়েছে তাদের কঠোর শাস্তি দিন, ফাঁসি দিন। যাতে এমন নিষ্ঠুর ঘটনা আর কেউ ঘটাতে না পারে।’

এরশাদের সঙ্গে ছিলেন জাতীয় পার্টির মহাসচিব জিয়াউদ্দিন আহমেদ বাবলু, প্রেসিডিয়াম সদস্য সৈয়দ আবু হোসেন বাবলা, মীর আব্দুস সবুর আসুদ, যুগ্ম-মহাসচিব এ্যাডভোকেট রেজাউল ইসলাম ভূঁইয়া, নুরুল ইসলাম নুরু, কেন্দ্রীয় নেতা মনিরুল ইসলাম মিলন ও সুজন দে প্রমুখ।






মন্তব্য চালু নেই