মেইন ম্যেনু

সরকার জিয়ার কবর সরাতে চায় না, তবে…

জাতীয় সংসদ ভবনের পেছনের উদ্যান চন্দ্রিমা থেকে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমানের কবর সরানোর বিষয়ে আবারও ইঙ্গিত দিয়েছেন গণপূর্তমন্ত্রী মোশাররফ হোসেন। তবে এ ক্ষেত্রে তার বক্তব্য অনেকটা কৌশলী। মন্ত্রী বলেন, ‘চন্দ্রিমা উদ্যান থেকে কারো কবর আমরা সরাতে চাই না। তবে লুই আই খানের নকশায় যা যা আছে তা বাস্তবায়ন করা হবে।’

শনিবার সকালে রাজধানীর বমনা পার্কের সৌন্দর্য বৃদ্ধি, ঐতিহ্য সুরক্ষা ও জীব বৈচিত্র রক্ষাসহ সামগ্রিক উন্নয়নের লক্ষ্যে সরকারি ও বেসরকারি পযায়ে বিশেষজ্ঞ নিয়ে সভা শেষে এ কথা বলেন গণপূর্তমন্ত্রী।

জাতীয় সংসদ ভবন নির্মাণ হয়েছে যুক্তরাষ্ট্রের প্রখ্যাত স্থপতি লুই আর কানের নকশা অনুযায়ী। তিনি সংসদ ভবনের পাশাপাশি দুই পাশে বিশাল খোলা জায়গায় মাঠ, পেছনে লেক ও উদ্যানের নকশা তৈরি করেন। পাশাপাশি সচিবালয়ও সংসদ ভবনের আশেপাশে রাখার পরিকল্পনা করেন লুই আর কান।

পরে অবশ্য এই নকশায় ব্যত্যয় ঘটিয়ে নানা স্থাপনা তৈরি করা হয় সংসদ ভবনে। ১৯৮১ সালে ব্যর্থ অভ্যুত্থান চেষ্টায় সে সময়ের রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমান চট্টগ্রামে নিহত হওয়ার পর জিয়াকে তাৎক্ষণিকভাবে চট্টগ্রামেই দাফন করা হয়। তবে পরে কবর থেকে জিয়ার দেহাবশেষ তুলে চন্দ্রিমা উদ্যানে দাফন করা হয়।

আওয়ামী লীগ নেতারা অবশ্য নানা সময় দাবি করে আসছেন যে, চন্দ্রিমায় দাফন করা কফিনে জিয়ার দেহাবশেষ ছিল না। এখানে জিয়ার লাশ আছে, সেটা প্রমাণ করতে পারলে মন্ত্রিত্ব ছেড়ে দেয়ার ঘোষণাও দিয়েছেন মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রী আ ক ম মোজাম্মেল হক।

সম্প্রতি সরকার স্থপতি লুই আর কানের নকশা অনুযায়ী সংসদ ভবনের পেছনে বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রের পাশে খোলা জায়গায় সচিবালয় স্থাপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। একই সঙ্গে সংসদ ভবনের নকশা বহির্ভূত সব স্থাপনা সরিয়ে নেয়ার কথা বলছে সরকার। এই সিদ্ধান্তের কারণেই জিয়াউর রহমানের সমাধি সরিয়ে নেয়ার কথা উঠে। কারণ, জিয়াউর রহমানকে সামহিত করার বহু আগেই জাতীয় সংসদ ভবনের কাজ শেষ হয়ে যাওয়ায় নকশায় স্বাভাবিকভাবেই কারও কবর থাকার কথা না।

এই জন্য যুক্তরাষ্ট্র থেকে লুই আর কানের মূল নকশা দেশে আনার উদ্যোগও নিয়েছে সরকার। গণপূর্তমন্ত্রী বলেন, ‘স্থপতি লুই আই কানের মূল নকশা শিগগিরই দেশে আনা হচ্ছে। মূল নকশাটি যুক্তরাষ্ট্রের পেন্সিলভেনিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের আর্কাইভে রক্ষিত। আমারা নকশা টাকা পরিশোধ করেছি। যে কোন সময় হাতে পাব।’

মন্ত্রী বলেন, স্থপতি লুই আই কানের সংসদ ভবন এবং সংশ্লিষ্ট এলাকার মূল নকশা অনুযায়ী প্রয়াত রাষ্ট্রপতি জিয়াউর রহমানের কবর আছে কি না আমার জানা নাই। নকশাটি দেশে পৌঁছালেই সেটির আলোকে সংসদ এলাকার সংস্কার কার্যক্রম শুরু হবে। মূল নকশা চন্দ্রিমা উদ্যানে যা যা ছিল তাই থাকবে।’

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব শহীদ উল্লা খন্দকার, এনার্জি রেগুলেটরি কমিশনের চেয়ারম্যান ও সাবেক সচিব এ আর খান, প্রকৃতিবিদ দ্বিজেন শর্মা, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভিদ বিভাগের অধ্যাপক জসিম উদ্দিন প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।






মন্তব্য চালু নেই